menu

বাগেরহাটে নারীকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন ২টি মামলা দায়ের

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, বাগেরহাট
  • ঢাকা , মঙ্গলবার, ০৪ মে ২০২১
image

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলা সদরে কতিথ চুরির অভিযোগ এনে মধ্যবয়সী এক নারীকে হাত-পা বেঁধে নির্মম নির্যাতন করা হয়। খবর পেয়ে ফকিরহাট থানা পুলিশ ওই নারীকে উদ্ধার করে হেফাজতে নিয়েছে। এ ঘটনায় ফকিরহাট থানায় পৃথক ২টি মামলা দায়ের হয়েছে। থানা পুলিশ সোমবার দুপুরে মমতাজ বেগম নামের ওই নারীকে চুরি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে বাগেরহাট আদালতে প্রেরণ করেছে। অন্যদিকে মমতাজ বেগমকে মারপিটের অভিযোগে সে নিজে বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে অন্য একটি মামলা করেছেন। গত রোববার দুপুরে উপজেলা সদরের ফকিরহাট বাজারে ওই নারীকে নির্যাতন করে বাজারের ব্যবসায়ী জাহিদ হোসেন ও তার সহযোগীরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলা সদরের লিটন মার্কেটের একটি কাপড়ের দোকানে চুরির অভিযোগ এনে ওই নারীকে প্রকাশ্য জনসম্মুখে পিছমোড়া করে বেঁধে মারধর করা হয়। খবর পেয়ে ফকিরহাট থানা পুলিশ বাজার ব্যবসায়ীদের হাত থেকে ওই নারীকে উদ্ধার করে পুলিশ হেফাজতে নেয়। জনসম্মুখে বার বার পা ধরে ওই নারী বলছিলেন তিনি চুরি করেননি। কাপড় কিনতে এসেছেন। ফকিরহাট থানার ওসি (তদন্ত) মো. আলীমুজ্জামান গতকাল দুপুরে এ প্রতিবেদককে বলেন, ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার আলগী গ্রামের বাসিন্দা পরিচয়দানকারী ওই নারী চুরির কথা স্বীকার করায় দোকান মালিক রশিদ শেখ বাদী হয়ে প্রথমে একটি মামলা করেছেন।

আর আইন হাতে তুলে নেয়া ও প্রকাশ্য জনসম্মুখে ওই নারীকে বেঁধে মারপিট করার অভিযোগ এনে অজ্ঞাতনামা আসামি করে নির্যাতিতা নারী মমতাজ বেগম বাদী হয়ে আরেকটি মামলা করে। মমতাজ বেগমকে চুরির মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আর মমতাজকে কারা নির্যাতন করেছে এবং আইন হাতে তুলে নিয়েছে সে বিষয়টিও তদন্ত করা হচ্ছে।