menu

ইলিয়াস আলীর ‘গুম’ নিয়ে ‘সরল মনের’ বক্তব্যকে বিকৃত করা হয়েছে বলে অভিযোগ মির্জা আব্বাসের

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • ঢাকা , সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১

বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য ইলিয়াস আলীর নিখোঁজের ঘটনা নিয়ে তার ‘সহজ-সরল মনের সরল উক্তিগুলোকে বিকৃত’ করে গণমাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছে, বলে অভিযোগ করেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।

গতকাল দুপুরে রাজধানীর শাহজাহানপুরে নিজের বাসায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

গত শনিবার এক আলোচনা সভায় মির্জা আব্বাস ইলিয়াস আলীর ‘গুমের’ সঙ্গে সরকার জড়িত নয় বলে মন্তব্য করেন। ‘গুমের’ পেছনে নিজ দলের কারও সংশ্লিষ্টতারও তিনি ইঙ্গিত দেন বলে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়।

তবে গতকাল তিনি বলেছেন, ‘আমার সহজ-সরল মনের সরল উক্তিগুলোকে বিকৃত করে যার যেখান থেকে প্রয়োজন কেটে-ছিঁড়ে ইচ্ছেমতো লাগিয়ে দেয়া হয়েছে।’

২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল ঢাকার মহাখালী এলাকা থেকে গাড়িচালক আনসার আলীসহ নিখোঁজ হন ইলিয়াস আলী। বিএনপি অভিযোগ করে আসছে, তাকে সরকারই ‘গুম’ করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে মির্জা আব্বাস বলেন, ‘আমি গতকাল (শনিবার) ইলিয়াস আলীর গুমের বিষয়ে বক্তব্য রেখেছিলাম। আমি বক্তব্য রাখার পর ১ ঘণ্টা সময়ও লাগেনি বিভিন্ন মিডিয়া ফোন করেছে। আমি কী এ কথা বলেছি কিনা, ওই কথা বলেছি কিনা। আমি তো বুঝতেই পারলাম না যে আমি এমন কী কথা বললাম?’

শনিবারের সভায় মির্জা আব্বাস বলেন, ‘ইলিয়াস গুম হওয়ার আগের রাতে দলীয় অফিসে কোন এক ব্যক্তির সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা হয় মারাত্মক রকমের। ইলিয়াস তাদের খুব গালাগাল করেছিল। সেই যে পেছন থেকে দংশন করা সাপগুলো আমাদের দলে এখনও রয়ে গেছে।’

দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুলকে উদ্দেশে করে তিনি বলেছিলেন, ‘যদি এদের দল থেকে বিতাড়িত না করেন, তাহলে কোন পরিস্থিতিতেই দল সামনে এগুতে পারবে না।’

এরা কারা, কার সঙ্গে ইলিয়াস আলীর ‘গুম’ হওয়ার আগের রাতে দলীয় অফিসে বাকবিতণ্ডা হয়েছিল, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তর সরাসরি না দিয়ে মির্জা আব্বাস গতকাল বলেন, ‘একটা দলে কার সঙ্গে কার খোঁচাখুঁচি-ঝগড়াঝাটি আছে, এটা নিয়ে গণমাধ্যমের এত মাথা ঘামানো উচিত না।’

শনিবার ওই ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় মির্জা আব্বাস বলেন, ‘আমি জানি, বাংলাদেশ সরকার বা আওয়ামী লীগ সরকার ইলিয়াসকে গুম করে নাই। কিন্তু গুমটা করল কে? এই সরকারের কাছে আমি এটা জানতে চাই,।’ সিলেট বিভাগ জাতীয়তাবাদী সংহতি সম্মেলন, ঢাকার উদ্যোগে ওই ভার্চুয়াল সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন মির্জা ফখরুল।

সেদিন তিনি আরও বলেছিলেন, ‘একজন জলজ্যান্ত তাজা রাজনৈতিক নেতা গুম হয়ে গেল দেশের অভ্যন্তর থেকে, আমাদের একজন নেতা সালাহউদ্দিন আহমেদকে দেশ থেকে পাচার করে নিয়ে গেল, আমাদের চৌধুরী আলমকে গুম করে দেয়া হলো, আমাদের কত ছেলেকে গুম করে দেয়া হলো, আমি বুঝলাম এই সরকার করে না। করল কারা? আমি বলতে চাই, যারা করেছে তারা এদেশের স্বাধীনতা চায় না, তারা এ দেশটাকে স্বাধীন সার্বভৌম থাকতে দেবে না।’

তবে গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের উল্লেখ করে গতকাল বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘সরকার বা আওয়ামী লীগ ইলিয়াসকে গুম করেনি- এ কথা আমি বলিনি। আমার কথাকে বিকৃত করে পেঁচিয়ে লেখা হয়েছে। এছাড়া বিএনপি নেতারাই ইলিয়াস আলীকে গুম করেছে বলেও আমার উদ্ধৃতি দেয়া হয়েছে। আমি বিএনপির স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য হয়ে এ কথা কি বলা সম্ভব? অর্থাৎ নিজের মাথায় নিজেই বোম ফাটানোর ব্যবস্থা। অর্থাৎ, এটাকেও বিকৃত করা হয়েছে।’

তবে তিনি কী বলেছিলেন, তার বক্তব্যটা কী ছিল, এ নিয়ে কোন ব্যাখ্যা সংবাদ সম্মেলনে মির্জা আব্বাস দেননি। তিনি শুধু বলেন, ‘আমার বক্তব্যের কাটপিসকে তুলে ধরে সামনের অংশ পেছনের অংশ বাদ দিয়ে, মাঝ থেকে যার যতটুকু প্রয়োজন নিয়ে মনের মাধুরী মিশিয়ে নিজের মতো করে লিখেছেন। এর সঙ্গে আমার কোন সম্পৃক্ততা নাই। এজন্য আমার দল বা আমি কোন দায়-দায়িত্ব বহন করি না। যারা বলছেন, যারা লিখেছেন, তারাই দায়িত্ব বহন করবেন।’

নিজের সেই বক্তব্যের ব্যাখ্যায় আব্বাস বলেন, ‘আমি এমন কোন কথা বলিনি, যাতে দেশের কাছে, জাতির কাছে, দলের কাছে আমার বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখে পড়তে হবে। আমার বক্তব্যকে অনেকে হয়তো বুঝে উঠতে পারেননি। আমি যা বলেছি, আমার সংগঠনের ভালোর জন্য বলেছি। আমি যা বলেছি, ইলিয়াসকে স্মরণ করেই বলেছি। আমার বক্তব্যে আমি যা বলেছিলাম, আশা করি আজ তা বুঝাতে সক্ষম হয়েছি।’