menu

হটস্পট ঈশ্বরদীর অক্সিজেন সিলিন্ডার পাবনায় পাঠিয়ে তোপের মুখে স্বাস্থ্যকর্তা

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, ঈশ্বরদী (পাবনা)
  • ঢাকা , মঙ্গলবার, ২০ জুলাই ২০২১

ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আওয়ামী লীগ নেতা জালাল উদ্দিন তুহিনের দেওয়া ২০টি অক্সিজেন সিলিন্ডারের মধ্যে ১৭টি পাবনায় পাঠিয়ে দেয়ায় তোপের মুখে পড়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আসমা খান। করোনা পরিস্থিতিতে গত ৪ জুলাই আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় শিল্প ও বাণিজ্য উপকমিটির সদস্য জালাল উদ্দিন তুহিন ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান করেন। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আসমা খান দাবি করেন, পাবনায় স্বাস্থ্য সচিব আসবেন বলে সিভিল সার্জন (সিএস) ডা. মসিউর চৌধুরী তাকে বুধবার রাত সাড়ে ১১টায় ২০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার পাঠানোর নির্দেশনা দেন। এরপরই তিনি হাসপাতালের ভা-ারে রক্ষিত ব্যবসায়ী জালাল উদ্দিন তুহিনের দেয়া ২০টি সিলিন্ডারের মধ্যে তিনি ১৭টি সিলিন্ডার পাবনা সিভিল সার্জন অফিসে পাঠিয়ে দেন।

তবে পাবনার সিভিল সার্জন ডা. মসিউর চৌধুরী বলেন, স্বাস্থ্য সচিব পাবনায় আসবেন এমন কোন তথ্য আমার জানা নেই। পাবনায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় জরুরী প্রয়োজনে ঈশ্বরদী থেকে ১৫টি অক্সিজেন সিলিন্ডার দুইদিনের জন্য নিয়ে আসা হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের পূর্বের সিলিন্ডারগুলো ঈশ^রদীতে ফেরত পাঠানো হয়েছে। ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকসহ স্থানীয়রা জানান, পাবনায় করোনা আক্রান্তের অধিকাংশই ঈশ্বরদীর বাসিন্দা। বর্তমানে ঈশ্বরদী করোনার হটস্পটে পরিণত হয়েছে। ঈশ্বরদী কেন্দ্রিক সরকারের বড় বড় প্রজেক্টসহ বিভিন্ন কর্মযজ্ঞ চলছে। সেসব প্রতিষ্ঠানের কর্মরত অনেক মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য কারও দেয়া অক্সিজেন সিলিন্ডার কাউকে না জানিয়ে চুপিসারে পাঠানোটা মোটেও ঠিক হয়নি।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় শিল্প ও বাণিজ্য উপকমিটির সদস্য জালাল উদ্দিন তুহিন বলেন, করোনার হটস্পট থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার অন্যত্রে পাঠানোর বিষয়টি দুঃখজনক।

ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পি এম ইমরুল কায়েস বলেন, ডা. আসমা খান কীভাবে রাতের আধারে কাউকে না জানিয়ে ১৭টি অক্সিজেন সিলিন্ডার পাবনায় পাঠিয়েছেন বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পাবনায় স্বাস্থ্য সচিব আসবেন এমন কোন তথ্য আমার কাছেও নেই।