menu

মোবাইল উদ্ধার

সেপটিক ট্যাংকে নেমে ২ জনের মৃত্যু

সংবাদ :
  • জেলা বার্তা পরিবেশক, রংপুর
  • ঢাকা , বুধবার, ১২ জুন ২০১৯

পড়ে যাওয়া মোবাইল ফোন তুলতে সেপটিক ট্যাংকে নেমে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর অসুস্থ আরও একজন পিরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাত ১০টার দিকে রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার বড়ভোলা গ্রামে।

পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে, রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার বড়ভোলা গ্রামের মশের উদ্দিনের ছেলে দুলু মিয়ার (৩০) মোবাইল ফোন অসাবধানতাবশতঃ বাসার টয়লেটের সেপটিক ট্যাংকে পড়ে যায়। এর পর মোবাইল ফোনটি তুলতে দুলু মিয়া সেপটিক ট্যাংকে নামলে সেখানে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। তাকে উদ্ধার করার জন্য চাচাতো ভাই এনামুল হক (২০) সেপটিক ট্যাংকে নামলে সেও জ্ঞান হারায় ও দুজনই মারা যায়। এর পর আরেক চাচাতো ভাই শাহিন তাদের উদ্ধার করতে সেপটিক ট্যাংকে নামলে সেও গুরতর অসুস্থ হয়ে পড়লে ফায়ার সার্ভিস খবর দেয়া হয়। পরে পীরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনা স্থলে গিয়ে দুলু মিয়া ও এনামুলের লাশ উদ্ধার করে এবং শাহিনকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করে। স্বজনরা জানায়, এনামুল রংপুর কারমাইকেল কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। সে ঈদ উপলক্ষে চাচাতো ভাই দুলু মিয়ার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল। তার বাবার নাম আজাহার আলী, বাড়ি পীরগঞ্জ উপজেলার খেজমতপুর গ্রামে।

পীরগঞ্জ উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা সাহেব জামান জানান, সেপটিক ট্যাংকের স্লাবের একটি অংশ ভাঙ্গা ছিল সেটা দিয়েই মোবাইল ফোনটি পড়ে গিয়েছিল। সেই মোবাইল ফোন তুলতে গিয়ে দুজনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে।

পীরগঞ্জ থানার ওসি সরেশ চন্দ্র জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।