menu

সরস্বতী পূজা উদযাপন

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • ঢাকা , সোমবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
image

সরস্বতী দেবীর সামনে শিশুকে অক্ষর জ্ঞান -সংবাদ

ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব বাণী অর্চনা, বিদ্যার দেবী শ্রীশ্রী সরস্বতী পূজা উদযাপিত হয়েছে। জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দিতে এক বছর পর আবারও আসেন বিদ্যাদেবী, জ্ঞানদাত্রী দেবী সরস্বতী। বিদ্যাদেবীর কৃপা লাভের আশায় গতকাল রাজধানীসহ সারাদেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং ঘরে ঘরে এই পূজা উদযাপিত হয়। মন্দির ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে পূজা ছাড়াও অন্য অনুষ্ঠানমালায় ছিল পুষ্পাঞ্জলি প্রদান, প্রসাদ বিতরণ, ধর্মীয় আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, সন্ধ্যা আরতি এবং আলোকসজ্জা। এছাড়াও বিদ্যার এই দেবীকে স্মরণ করেছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ক্লাবের হিন্দুধর্মীয় শিক্ষার্থীরা। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম এ প্রধান উৎসবকে ঘিরে সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাসজুড়ে ছিল ধর্মীয় আমেজ।

প্রতিবছর মাঘ মাসের শুক্লাপক্ষের পঞ্চমী তিথিতে শ্বেতশুভ্র কল্যাণময়ী বিদ্যাদেবীর আবাহন করা হয়। ঢাকঢোল-কাঁসর আর শঙ্খধ্বনিতে মুখরিত হয়ে ওঠে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের বিভিন্ন পূজাম-প।

সরস্বতী বিদ্যার ও ললিতকলার অধিষ্ঠাত্রী দেবী হিসেবে পূজিত হন। ঐশ্বর্যদায়িনী, বুদ্ধিদায়িনী, জ্ঞানদায়িনী, সিদ্ধিদায়িনী, মোক্ষদায়িনী এবং শক্তির আধার হিসেবে সরস্বতী দেবীর আরাধনা করা হয়। প্রতি বছরের মতো এবারও পূজার মূল আকর্ষণ ছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল এবং চারুকলা ইনস্টিটিউট।

এছাড়া রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির, রামকৃষ্ণ মিশন ও মঠ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ম-পে ম-পে থাকবে বিশেষ আয়োজন। পাশাপাশি ঢাকা কলেজ, ইডেন কলেজ, শাঁখারীবাজার, তাঁতিবাজার, সনাতন সমাজকল্যাণ সংঘ, ব্যাংকার্স পূজা পরিষদ, খিলগাঁও তিলপাপাড়া দেবমন্দিরে কৃপাসংঘসহ বিভিন্ন স্থানে বিপুল উদ্দীপনায় পূজার আয়োজন করা হয়।

ধর্মীয় বিধান অনুসারে মাঘ মাসের শুক্লা পঞ্চমী তিথিতে এই পূজা পালনের দিন। সনাতনী প্রতিটি পরিবার গুরুত্বের সঙ্গে সরস্বতী পূজা উদযাপন করে থাকে। এছাড়া বিদ্যারদেবীর কৃপা লাভের আশায় মন্ত্রপাঠ আর পূজা অর্চনা করা হবে। দেবীর পাদপদ্মে পুষ্পাঞ্জলি দেবেন ভক্তরা। রাজধানী ঢাকা ছাড়াও সারাদেশের বিভিন্ন স্থানে চলবে বিদ্যা ও সংগীতের দেবীর আরাধনা।