menu

রাজধানীতে নারীসহ ২ খুন

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৭ মে ২০১৮

রাজধানীর দক্ষিণখানে আজিজা নামে এক গৃহবধূকে জবাই করে হত্যা করেছে তারই স্বামী। গতকাল সকালে এ ঘটনা ঘটে। এছাড়া, কামরাঙ্গীরচর বেড়িবাঁধ থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রাজধানীর পল্টনে একটি আবাসিক হোটেল থেকে মামুন (২৪) নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

দক্ষিণখান থানার ওসি তপন চন্দ্র সাহা জানান, দক্ষিণখান মোউসাইর এলাকায় একটি টিনশেড বাড়িতে আজিজা ও তার স্বামী থাকতেন। আজিজা স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় কাজ করতেন। গতকাল স্বামীর সঙ্গে তার ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে স্বামী ধারালো অস্ত্র দিয়ে আজিজাকে জবাই করে হত্যা করেন। ঘটনার পর থেকেই ওই ব্যক্তি পলাতক বলে জানান ওসি। তবে তদন্তের স্বার্থে তিনি আজিজার স্বামীর নাম বলতে রাজি হননি। পরে ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়।

এদিকে বেড়িবাঁধ থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। কামরাঙ্গীরচর থানার ওসি শাহীন শেখ বলেন, বেড়িবাঁধের ঢালের বস্তির জোছনা নামে এক বাসিন্দা চটের বস্তা পড়ে থাকতে দেখেন। জোছনা তার স্বামীর সহায়তায় বস্তার মুখ খুলে লাশ দেখতে পান। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠায়। ওসি আরও জানান, পরনে চেক লুঙ্গি। গায়ের রঙ কালো। তার পরিচয় জানতে জাতীয় নিবন্ধন শাখায় আঙুলের ছাপ নেয়া হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, অন্য কোথায় হত্যার পর লাশ বস্তাবন্দী করে বেড়িবাঁধের সড়কে ফেলে দিয়েছে ঘাতকরা। তবে এ ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত রয়েছে তাদের ধরতে অভিযান চলছে।

এছাড়া গতকাল সকাল ১০টার দিকে পুরানা পল্টনের ৫৯ নম্বরে বন্ধু আবাসিক হোটেল থেকে মামুন নামের একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। হোটেলটির ম্যানেজার হাসান জানান, গত মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে মামুন ও তার বন্ধু জাবেদ হোটেলের ৫০৫ নম্বর কক্ষ ভাড়া নেয়। রাতে তারা চিকেন গ্রিল খায়। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে জাবেদ তাকে ফোন দিয়ে রুমে যেতে বলেন। পরে ম্যানেজার ওই রুমে গিয়ে তাদের দু’জনকে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। পরে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মামুনকে সকাল পৌনে ১০টায় মৃত ঘোষণা করেন। মৃত মামুনের ভাই সোহাগ জানান, মঙ্গলবার দিবাগত রাতে মামুনের ব্রাজিল যাওয়ার ফ্লাইট ছিল। কিন্তু ফ্লাইটটি বাতিল হওয়ায় মামুন ও গ্রাম থেকে তার সঙ্গে আসা বন্ধু জাবেদ ওই হোটেলে উঠে। মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে তিনি জানাতে পারেননি। মতিঝিল থানা পুলিশ জানিয়েছে, জাবেদ হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছে। এ ঘটনায় হোটেল ম্যানেজারসহ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। মামুনের মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।