menu

দেশের স্বাস্থ্যব্যবস্থা একেবারে ভঙ্গুর ফখরুল

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • ঢাকা , শুক্রবার, ৩১ জুলাই ২০২০

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, অনেকে অভিযোগ করেন- বাংলাদেশের মানুষ বাইরে চিকিৎসা করাতে যায় কেন? এজন্য যায় যে, এখানে আপনার ডায়াগনোসিস করা সম্ভব হয় না, ডায়াগনোসিসে সমস্যা হয়। সমস্ত ব্যবস্থাটা রোগীদের জন্য একটা সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। বাংলাদেশের স্বাস্থ্যব্যবস্থা একেবারেই ভঙ্গুর। এখানকার স্বাস্থ্য ব্যবস্থার প্রতি যে মানুষ আস্থা রাখতে পারে না- বাবুর অসুস্থতা, চলে যাওয়া এটাই প্রমাণ করে।

গতকাল রাজধারীর নিউ ইস্কাটনে স্বেচ্ছাসেবক দলের সদ্যপ্রয়াত সভাপতি শফিউল বারীর বাবুর বাসায় তার পরিবারের সদস্যদের সান্তনা ও সমবেদনা জানান বিএনপি মহাসচিব। এ সময় সাংবাদিকদের কাছে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময়ে বিএনপি নেতা কামরুজ্জামান রতন, প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, মোস্তাফিজুর রহমান, সাইফুল ইসলাম ফিরোজ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, বাবুর মতো একজন জনপ্রিয়, সচেতন রাজনৈতিক নেতা এভাবে চলে যাবে এটা আমরা কল্পনাই করতে পারিনি। তার অল্প সময়ের জীবনের ক্যারিয়ার বর্ণাঢ্য। তাকে শুধু বিএনপির জন্য নয়, দেশের জন্য, মানুষের জন্য প্রয়োজন ছিল। তিনি এদেশের রাজনীতির ক্ষেত্রে একটা ব্যতিক্রম। আমি কিছুক্ষণ আগে স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলছিলাম- দুইটা বাচ্চা রেখে গেছে। মাথা গোজার ঠাঁইটুকু নাই। এখনও ভাড়া বাসায় থাকেন। তার স্ত্রীও কাজ করছিল এখন তাকে অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। আমার একটাই অনুরোধ থাকবে আমার সবার কাছে- তার পরিবার, স্ত্রী-সন্তানদের আমাদের নিজেদের মানুষ মনে করে আমরা যেন এগিয়ে আসি এবং সহযোগিতার হাত বাড়াই।

স্বেচ্ছাসেবক দলের উদ্যোগে শফিউল বারী বাবুর জন্য দোয়ার আয়োজন করা হয়। ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েলের পরিচালনায় দোয়া মাহফিলে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান জুয়েল, কেন্দ্রীয় নেতা মীর সরফত আলী সপুসহ স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা-কর্মীরা অংশ নেন।

রিজভী সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বাবুর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন, এখন চারিদিকে যে দুর্দিন চলছে, এই দুর্দিনে শফিউল বারী বাবুও সামনের কাতারে থাকত। দুর্দিনের একজন বলিষ্ঠ সিপাহসালারকে আন্দোলনের কাফেলা থেকে আমরা হারালাম।