menu

দু’দেশের মানুষের যোগাযোগ বৃদ্ধিতে গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে

রিভা গাঙ্গুলী

সংবাদ :
  • কূটনৈতিক বার্তা পরিবেশক
  • ঢাকা , রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০১৯

বাংলাদেশ এবং ভারতে অনেক শক্তিশালী গণমাধ্যম রয়েছে। এই গণমাধ্যমগুলোই দু’দেশের মানুষের মধ্যে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক যোগাযোগ বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলী। গতকাল বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ম্যাস কমিউনিকেশন্স’ (আইআইএমসি) অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ-এর এক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশের সভাপতি ইহসানুল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সংসদ সদস্য অসীম কুমার উকিল, কেন্দ্রীয় আইআইএমসি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি প্রসাদ সান্যাল ও অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশের সহ-সভাপতি আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া বক্তৃতা করেন।

রিভা গাঙ্গুলী বলেন, বাংলাদেশ-ভারত দুদেশেই শক্তিশালী প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া রয়েছে। সাধারণ জনমত তৈরি এবং দেশের মানস গঠনে গণমাধ্যমের ভূমিকা কোনভাবেই খাটো করে দেখা যায় না। তিনি বলেন, উভয় দেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি বিনিময় এবং বিকাশে দুদেশের মিডিয়ার মধ্যে আরও বেশি সম্পৃক্ততা থাকা উচিত।

নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের সম্পর্ক রক্তের অক্ষরে লেখা। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় প্রায় ১২শ’ ভারতীয় সৈনিক শাহাদাত বরণ করেছেন। সেসময় ভারত এক কোটির বেশি বাংলাদেশিকে আশ্রয় দিয়েছিলো। তিনি বলেন, আইআইএমসি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ বাংলাদেশ ও ভারতের উন্নয়নে বিদ্যমান চমৎকার সম্পর্ক আরও জোরদার করতে দুদেশের সাংবাদিকদের জন্য একটি অত্যন্ত কার্যকর প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করতে পারে। ইহসানুল করিম বলেন, দুদেশর মধ্যে এমন সুন্দর সম্পর্ক নিশ্চিত করা সহজ ছিলো না। এটি সম্ভব হয়েছে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাস্তবানুগ ও গতিশীল নেতৃত্ব এবং ভারতের দিক থেকে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও তার পূর্বসুরি নেতাদের কারণে।