menu

গঙ্গা-যমুনা নাট্যোৎসবে

দিনাজপুর নাট্য সমিতির ‘কনক সরোজিনী’ কলকাতা যাচ্ছে আজ

সংবাদ :
  • চিত্ত ঘোষ, দিনাজপুর
  • ঢাকা , বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০
image

‘কনক সরোজিনী’ নাটকের একটি দৃশ্য -সংবাদ

শতবর্ষী নাট্য প্রতিষ্ঠান দিনাজপুর নাট্য সমিতি প্রযোজিত নাটক ‘কনক সরোজিনী’ ভারতের কোলকাতায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত ‘গঙ্গা-যমুনা নাট্যোৎসবে অংশ নিতে ২০ সদস্যবিশিষ্ট নাট্যদল আজ কোলকাতার উদ্দেশে দিনাজপুর ত্যাগ করবে। দিনাজপুর নাট্য সমিতিসহ বাংলাদেশের ৭টি নাট্যদল এ উৎসবে অংশ নিচ্ছে। দিনাজপুর নাট্য সমিতি প্রযোজিত নাটক ‘কনক সরোজিনী’ ২৮ ফেব্রুয়ারি মঞ্চস্থ হবে কোলকাতার ঐতিহাসিক ‘তপন মঞ্চে’। এর আগে ২০১৯ সালে ভারতের উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ বিচিত্রা নাট্য সংস্থার আমন্ত্রণে ‘সপ্তবর্ণ নাট্যোৎসব’ এ ২৮ নভেম্বর এবং ২৯ নভেম্বর দক্ষিণ দিনাজপুর বালুরঘাট নাট্য মন্দিরে ‘কনক সরোজিনী’ মঞ্চস্থ হয়।

সর্বশেষ বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন আয়োজিত বাংলাদেশ নাট্যোৎসবে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি দিনাজপুর শিল্পকলা একাডেমির মঞ্চে মঞ্চস্থ হয় ‘কনক সরোজিনী’। ৬ষ্ঠবার মঞ্চায়িত নাটকটি উপভোগ করেন জেলার বিপুলসংখ্যক নাট্যমোদি। কানায় কানায় পূর্ণ ছিল পুরো জেলা শিল্পকলার মিলনায়তন। এক ঘণ্টা পঁয়তাল্লিশ মিনিট দীর্ঘ সময়ের নাটক দেখে মুগ্ধ হলেন নাটকপাগল মানুষরা।

দিনাজপুর নাট্য সমিতি প্রযোজিত ও ইতিহাস আশ্রিত এই নাটকে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন সুপ্রীতি প্রিয়া। এছাড়াও অন্য চরিত্রে আছেন- সম্বিত সাহা সেতু, তরিকুল আলম তরু, কথক, শুক্লা সাহা, রেণু বেগম, স্মৃতি, সেখ ছগীর আহমেদ কমল, টঙ্কনাথ রায়, রাজিব হোসেন, কনক রায়, জাহিদ হোসেন প্রমুখ।

‘কনক সরোজিনী’ নামে মাহমুদুল ইসলাম সেলিম রচিত এ নাটকটি নির্দেশনা দিয়েছেন তরুণ নাট্যপ্রতিভা নয়ন বার্টেল। বাংলার নাটকে উনিশ শতক নানা কারণেই স্মরণযোগ্য। ভারতীয় রেনেসাঁ উত্তর এই সময়ে বাংলা নাটকের অভাবনীয় পরিবর্তন সাধিত হয়। পেশাদার রঙ্গমঞ্চ এ সময়ে পূর্ণাবয়ব লাভ করে। কোলকাতার এই নাট্যযাত্রার প্রভাব তৎকালীন পূর্ববাংলার ঢাকাসহ মফস্বল শহরে ছড়িয়ে পড়ে। তখনকার নাটকে মূলস্রোতে দাঁড়িয়েছেন নারী অভিনেত্রীরা। তাদের ভাসমান জীবন, মূল্যহীন যৌবন, আর অবশ্য বিক্রয়যোগ্য প্রতিভা বা ক্ষমতা সবটাই পুরুষতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থায় পণ্য।

শিল্পী এখানে দেহ সৌষ্ঠব আর লিঙ্গের কারণেই গুরুত্বহীন। হয়ত তাদের অকালমৃত্যু আর নিরন্তর আত্মত্যাগের মধ্য দিয়েই গড়ে উঠেছে আমাদের অজানা পেশাদার রঙ্গমঞ্চের অলিখিত ইতিহাস। ইতিহাসের সেসব ঘটনাই উপজীব্য হয়েছে এই নাটকে। অভিনেত্রী বিক্রয়ের প্রসঙ্গটি অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচিত হয়েছে এতে। আজ বিংশ শতাব্দিতে দাঁড়িয়ে আমরা কী পেরেছি নারীর প্রতি সেই কুৎসিত দৃষ্টিভঙ্গি ফেরাতে? তেমনি অনেক প্রশ্নের উদ্রেক রয়েছে এই নাটকে।

এ নাটকের মঞ্চ পরিকল্পনা করেন ফজলে রাব্বি সুকর্ণ, সংগীত ও আলোকায়ন করছেন নির্দেশক নিজেই। শতবর্ষী ঐতিহ্যের নাট্যসংগঠন দিনাজপুর নাট্য সমিতি। এটি নয়ন বার্টেল নির্দেশিত ১৭তম প্রযোজনা। এর আগে ‘ক্ষত-বিক্ষত’, ‘ময়ূর সিংহাসন’, ‘প্রাগৈতিহাসিক’সহ বেশ কিছু দর্শকপ্রিয় নাটক উপহার দিয়ে নিজেকে একজন মেধাদীপ্ত নির্দেশক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। নাটকের প্রতিটি দৃশ্যের শেষে নাট্যমোদি দর্শকের করতালি অভিনয় শিল্পীদের বেশ উৎসাহ যুগিয়েছে।

উল্লেখ্য, ৩১ অক্টোবর ২০১৯ সন্ধ্যায় ‘কনক সরোজিনী’ নাটকের প্রথম প্রদর্শনীর শুভ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক সম্পর্কবিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী। বিশেষ অতিথি ছিলেন দিনাজপুর-১ (বীরগঞ্জ-কাহারোল) আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল।

দিনাজপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম দিনাজপুর নাট্য সমিতি প্রযোজিত নাটক ‘কনক সরোজিনী’ ভারতের কোলকাতায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত ‘গঙ্গা-যমুনা নাট্যোৎস’-এ সফল মঞ্চায়নের আশা প্রকাশ করে বলেন, দিনাজপুর তথা বাংলাদেশ জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ ও সাহসী নেতৃত্বে মৌলবাদ-জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িক শক্তির সব ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে দেশে শিল্প-সংস্কৃতি ও সাহিত্যের যে বেগবান হয়ে উঠেছে- শতবর্ষী নাট্য সংগঠন দিনাজপুর নাট্য সমিতি মহান মুক্তিযুদ্ধের বন্ধু দেশ ভারতের মাটিতে ‘কনক সরোজিনী’ মঞ্চস্থ করে তার প্রমাণ রাখবে। তিনি নাটকের সব কলা-কুশলী ও কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানান।

দিনাজপুর-১ (বীরগঞ্জ-কাহারোল) আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল ভারতের মাটিতে ‘কনক সরোজিনী’ নাটকটি মঞ্চস্থ করে শতবর্ষী নাট্য সংগঠন দিনাজপুর নাট্য সমিতির ঐতিহ্যগাঁথা গৌরবকে ধরে রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি। কলা-কুশলী ও কর্মকর্তাদের সফলতা কামনা করছি।