menu

খালপাড়ে সব অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার আহ্বান

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২১

খালপাড়ে থাকা সব অবৈধ স্থাপনা নিজ উদ্যোগে সরিয়ে নিতে স্থানীয়দের আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি)’র মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। অন্যথায় এলাকাবাসীদের সঙ্গে নিয়ে অবৈধ দখল উচ্ছেদ করা হবে হুঁশিয়ারি দেন তিনি। এছাড়া আগামী মার্চ থেকে ডিএনসিসির হোল্ডিং ট্যাক্স অনলাইনে বাসায় বসেই দেয়া যাবে বলেও জানান মেয়র। গতকাল রাজধানীর রূপনগর খাল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন তিনি।

এ সময় খালের সঙ্গে তুরাগ নদীর সংযোগ করা হবে উল্লেখ মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, রূপনগর আবাসিক এলাকা থেকে রূপনগর খাল দিয়ে সাংবাদিকদের নিয়ে নৌকায় তুরাগ নদীতে যেতে চাই। রূপনগর খালে আগে প্রচুর আবর্জনা ছিল। আমরা সেগুলো পরিষ্কার করেছি। প্রতিদিন ৫০ থেকে ৬০ জন কর্মী কাজ করে ১৫ দিনে খালটি পরিষ্কার করা হয়। এটি প্রায় দুই কিলোমিটার লম্বা এবং সর্বোচ্চ ৬০ ফুট চওড়া। এখন কাজ হচ্ছে খাল এবং এর আশপাশের অংশ সুন্দর করা। খালের পাড়ে প্রাথমিকভাবে গাছ লাগানো হবে। এরপর সাইকেল লেন তৈরি করা হবে।

খাল পুরোপুরি পরিষ্কার হলে এলাকাবাসীর বিভিন্ন সুবিধার কথা তুলে ধরে মেয়র বলেন, এই এলাকায় বেশ কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আছে। এখানে মনিপুর স্কুল, কমার্স কলেজ এবং একটি বিশ্ববিদ্যালয়সহ আরও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আছে। শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের সময় মেইন রোডের ওপর চাপ পড়ে। রূপনগর খালের পাশে ওয়াক ওয়ে এবং সাইকেল লেন করতে পারলে সবাই যাতায়াত করতে পারবে। এজন্য আমরা এখানে ওয়াক ওয়ে এবং সাইকেল লেন করব। সবুজায়নের জন্য ইতোমধ্যে গাছ লাগানো হয়েছে।

এর আগে তিনি ডিএনসিসি কর্তৃক পরিষ্কার করা রূপনগর খাল পাড় দিয়ে হেঁটে প্রায় এক কিলোমিটার হেঁটে পরিদর্শন করেন। পরে রূপনগর আবাসিক এলাকার একটি সড়কের উপর বাচ্চাদের সঙ্গে কিছুক্ষণ ক্রিকেট খেলেন। পরে রূপনগর খালের পাড়ে একটি আম গাছের চারা রোপণ করেন। পরিদর্শন শেষে মেয়র পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন।

পরিদর্শনকালে অন্যদের মধ্যে ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তফাজ্জল হোসেন টেনু, ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তাইজুল ইসলাম বাপ্পি ডিএনসিসির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমোডর এম সাইদুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। রূপকথার খাল পরিদর্শন করে দুপুর দেড়টায় মেয়র আতিকুল ইসলাম মোহাম্মদপুর বিআরটিসি বাস ডিপো পরিদর্শন করেন। মোহাম্মদপুর বাসস্ট্যান্ডের এই অংশে যানজট কমানোর জন্য বাস ডিপোর সীমানা প্রাচীর ভেঙে সড়ক প্রশ্বস্ত করা হবে বলে তিনি জানান।