menu

তালেবানকে আলোচনার আহ্বান আফগান প্রেসিডেন্টের

ট্রাম্পের শান্তি আলোচনা বাতিলের সিদ্ধান্তে আমেরিকার আরও নাগরিক প্রাণ হারাবেন বলে হুঁশিয়ারি তালেবানের

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • ঢাকা , মঙ্গলবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আফগানিস্তানের সশস্ত্র বিদ্রোহীগোষ্ঠী তালেবানকে সহিংসতা বন্ধ করে সরকারের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি। তালেবানের সঙ্গে খসড়া শান্তি চুক্তি নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প পূর্বনির্ধারিত একটি বৈঠক বাতিল ঘোষণা করার পর ঘানি গত রোববার এ আহ্বান জানান। এদিকে, ট্রাম্পের শান্তি আলোচনা বাতিল করার সিদ্ধান্তে আফগানিস্তানে থাকা আরও বেশি মার্কিন নাগরিক প্রাণ হারাবেন বলে মন্তব্য করেছে তালেবান কর্মকর্তারা। গত শনিবার এক টুইটার বার্তায় ট্রাম্প হঠাৎই তালেবানের ‘শীর্ষ নেতাদের’ সঙ্গে গোপন বৈঠকের পরিকল্পনা বাতিলের ঘোষণা দেন।

ট্রাম্পের শান্তি আলোচনা বাতিলের প্রতিক্রিয়ায় ঘানির কর্মকর্তারা এক বিবৃতিতে জানান, তালেবান যখন যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হবে তখনই শান্তি আসবে।’ এদিকে, তালেবানের মুখপাত্র জাবিহউল্লাহ মুজাহিদ এক বিবৃতিতে বলেন, শান্তিচুক্তি স্বাক্ষর ও ঘোষণা বিষয়ে দুই পক্ষ থেকে জোর প্রস্তুতি চলছিল। হঠাৎ মার্কিন প্রেসিডেন্ট তা ভেস্তে দিলেন। এর মধ্যে দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র শান্তিতে বিশ্বাসী নয় তা আবারও প্রকাশ পেল।

শান্তি আলোচনা থেকে বেরিয়ে যাওয়াকে যুক্তরাষ্ট্রের অভিজ্ঞতা ও পরিপক্কতার অভাব বলেও মন্তব্য করেন তালেবান মুখপাত্র। মুজাহিদ বলেন, যুদ্ধের পরিবর্তে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ ছিলাম। এখন দেশ থেকে বিদেশি দখলদারি শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমরা সন্তুষ্ট হব না। শান্তি চুক্তির আওতায় যুক্তরাষ্ট্র ২০ সপ্তাহের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে ৫ হাজার ৪০০ সৈন্য প্রত্যাহার করে নেয়ার প্রস্তাব ছিল। আফগানিস্তানে এখন ১৪ হাজার মার্কিন সৈন্য রয়েছে। একটি খসড়া শান্তি শান্তি চুক্তির ব্যাপারেও দুই পক্ষ এক মত হয়েছিল। কিন্তু এখন তা আবার অনিশ্চিত হয়ে পড়লো। তালেবান গত বৃহস্পতিবার কাবুলে একটি আত্মঘাতী বোমা হামলার দায় স্বীকার করার পর তাৎক্ষণিকভাবে ট্রাম্প আলোচনার পরিকল্পনা বাতিল করেন। তবে ট্রাম্পের টুইটার বার্তায় তালেবানের সঙ্গে চুক্তি বাতিল হয়েছে কিনা তা স্পষ্ট নয়। তিনি কেবল এ পর্যায়ে আলোচনা বাতিল করেছেন বলে জানিয়েছে এক কর্মকর্তা। তালেবান গোষ্ঠী সম্প্রতি কয়েক সপ্তাহে যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে বোমা হামলা জোরদার করেছে। আফগানিস্তানের তালেবান নেতাদের ঘনিষ্ঠ এক কর্মকর্তা বলেছেন, তারা চলমান আলোচনার সব বিষয় নিয়ে একটি বিবৃতি দেওয়ার আগে বৈঠক করবেন। আফগানিস্তানে ১৮ বছরের যুদ্ধাবসানে একটি পূর্ণ শান্তি চুক্তি নির্ভর করছে বিভিন্ন কর্মকর্তা ও সুশীল সমাজের নেতাদের সঙ্গে আলোচনাসহ মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের বিষয়টিসহ অন্যান্য ইস্যুতে আরেকটি চুক্তি হওয়ার ওপর। কিন্তু তালেবান এ পর্যন্ত আফগান সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসতে অস্বীকৃতি জানিয়ে এসেছে। তারা আফগান সরকারকে অবৈধ এক ‘পুতুল’ প্রশাসন বলেই গণ্য করে।