menu

বসল ৩৮তম স্প্যান

পদ্মা সেতুর পৌনে ৬ কিলোমিটার দৃশ্যমান

আর রয়েছে ৩টি

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • ঢাকা , রবিবার, ২২ নভেম্বর ২০২০
image

মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর ৩৮তম স্প্যান বসানো হয়েছে। গতকাল দুপুরে ১ ও ২ নম্বর খুঁটির ওপর (স্প্যান-১) সফলভাবে বসানো হয়। এর মাধ্যমে সেতুর ৫ হাজার ৭০০ মিটার (প্রায় পৌনে ৬ কি.মি) দৃশ্যমান হলো। ৩৭তম স্প্যান বসানোর ১০ দিনের মধ্যে এই স্প্যান বসানো হলো। মোট ৪১টি স্প্যানের মধ্যে এখন বসানো বাকি এখন রয়েছে আর ৩টি। পদ্মাসেতু কর্তপক্ষ জানিয়েছে, নভেম্বরে আরও ১টি এবং বিজয় দিবসের আগেই সব স্প্যান স্থাপন করা হবে।

পদ্মাসেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান মো. আবদুল কাদের বলেন, কুমারভোগের কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে স্প্যানটি নিয়ে রওনা হয় ভাসমান জাহাজ ‘তিয়ান ই’। ‘১-এ’ নামের স্প্যানটি খুঁটির কাছে পৌঁছে দেয়ার পর শুরু হয় বসানোর নানা প্রক্রিয়া। অ্যাংকরিংসহ অন্যান্য অনুষঙ্গিক কাজ শেষে দুপুর ২টা ৩৫ মিনিটে স্প্যানটি স্থাপন করা হয়। এর আগে ১২ নভেম্বর মাওয়া প্রান্তের ৯ ও ১০ নম্বর খুঁটিতে ৩৭তম স্প্যানটি স্থাপন করা হয়। তিনি বলেন, সেতুর ৪২টি খুঁটির ওপর ৪১টি স্প্যান বসানো হবে। এরমধ্যে ৩৮টি স্প্যান বসে সেতুর দৃশ্যমান এখন ৫৭০০ মিটার। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে দ্বিতল সেতুর বাকি থাকবে আর মাত্র আধা কিলোমিটারের কম। এছাড়া সেতুর অন্যান্য কার্যক্রমও চলছে দ্রুত গতিতে জানিয়ে তিনি বলেন, ইতোমধ্যে ১ হাজার ২১১টি রোডওয়ে স্লাব ও ১ হাজার ৮০০ রেলওয়ে স্লাব বসানো হয়ে গেছে। সংযোগ সেতু ও নদী শাসনের কাজও দ্রুত এগুচ্ছে। মূল সেতুর অগ্রগতি ৯০ শতাংশ আর সার্বিক অগ্রগতি ৮২ শতাংশ।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর খুঁটিতে প্রথম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় পদ্মা সেতু। মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি) এবং নদী শাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এই বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে পদ্মা সেতুর কাঠামো। সেতুর ওপরের অংশে যানবাহন ও নিচ দিয়ে চলবে ট্রেন। সেতু কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ২০২১ সালের জুন মাসে সেতুর সব ধরনের কাজ শেষ হবে এবং তা যান চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হবে।