menu

বেপরোয়া ভিক্টর পরিবহন

দু’জন নিহত ঘটনার প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • ঢাকা , মঙ্গলবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
image

শিক্ষার্থী মেহেদী ও সংগীতশিল্পী রব নিহতের ঘটনায় রাজধানীর তুরাগের ধউর এলাকায় শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

দু’দিনের ব্যবধানে ভিক্টর ক্ল্যাসিক পরিবহনের পৃথক বাসচাপায় সংগীত পরিচালক পারভেজ রব ও শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান ছোটন নিহতের প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করেন শিক্ষার্থীরা।

গতকাল দুপুরে রাজধানীর তুরাগের ধউর এলাকার ইস্ট ওয়েস্ট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সামনে সড়ক অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেন তারা। পরে পুলিশ তাদের সড়ক থেকে সরিয়ে দিলে সড়কের পাশে মানববন্ধন করেন শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধনে অংশ নেয়া শিক্ষার্থী সুজন বলেন, গত শনিবার রাত ৮টার দিকে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানাধীন ৯ নম্বর সেক্টরের স্লুইস গেট এলাকায় দুই বাসের চাপায় মেহেদী হাসান ছোটন (২০) নিহত হন। এতে আহত হন তার বন্ধু আলভী রব (১৯)। ৫ সেপ্টেম্বর বাসচাপায় নিহত হন আলভীর বাবা সংগীত পরিচালক পারভেজ রব। আমরা এই হত্যার বিচার চাই।

নিহত পারভেজ রবের স্ত্রী সুলতানা রব জানান, শনিবার রাতে তার স্বামীর কুলখানির জন্য বাজার করতে যাচ্ছিলেন তার ছেলে আলভী রব ও বন্ধু মেহেদী হাসান ছোটন। এ সময় ভিক্টর পরিবহনের একটি বাস তাদের চাপা দেয়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। রাতে চিকিৎসাধীনে মৃত্যু হয় মেহেদীর। পরে আলভীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেয়া হয় শ্যামলী ট্রমা সেন্টারে।

ঘটনার পর আহত আলভী সাংবাদিকদের জানান, তিনি তুরাগ কামাড়পাড়া এলাকায় পরিবারের সঙ্গে থাকেন। উত্তরা ইউনিভার্সিটিতে বিবিএ প্রথম বর্ষের ছাত্র তিনি। শনিবার রাতে বাবার কুলখানির জন্য বন্ধু মেহেদীকে নিয়ে টঙ্গী বাজারে যাচ্ছিলেন বাজার করতে। ৯ নম্বর সেক্টরের সøুইস গেট এলাকায় বাসের জন্য দাঁড়িয়ে ছিলেন তারা। তখন ভিক্টর ক্ল্যাসিক পরিবহনের একটি গেটলক বাস এলে তারা সেটিতে ওঠার জন্য সিগন্যাল দেন। বাসটি কিছুটা গতি কমালে তিনি জানালা ধরে হেলপারকে দরজা খুলতে বলেন।

তখন দরজা না খুলে বাসটি আরও জোরে চলতে শুরু করে। ঝুলন্ত অবস্থা থেকে তিনি নামতে পারছিলেন না। একপর্যায়ে বাসটি রাস্তার বামপাশে থেমে থাকা আরেকটি মিনিবাসকে চাপা দেয়। তখন তিনি নিচে পড়ে যান। এরপর দেখেন পেছনে তার বন্ধু মেহেদীও রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন। তিনিও উঠে দাঁড়াতে পারছিলেন না। পরে পথচারীরা তাদের উদ্ধার করে উত্তরা ক্রিসেন্ট হাসপাতালে নিয়ে যায়।

উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি তপন চন্দ্র সাহা জানান, এ দুই ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। তদন্ত চলছে। ঘটনার পর পরই ভিক্টর পরিবহনের বাসটিকে জব্দ করাসহ চালককে আটক করা হয়েছে। তদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে বলে জানান তিনি।