menu

তানিয়া ধর্ষণ-হত্যা

আরেক আসামি লালনের স্বীকারোক্তি

সংবাদ :
  • জেলা বার্তা পরিবেশক, কিশোরগঞ্জ
  • ঢাকা , বুধবার, ১৫ মে ২০১৯
image

বাজিতপুরে বাসের ভেতর নার্স শাহীনূর আক্তার তানিয়ার ধর্ষণ ও হত্যা মামলার আরও এক আসামি হেল্পার লালন মিয়া (৩২) আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। ৭ দিন রিমান্ডে থাকার পর গতকাল বিকেলে কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আল-মামুনের আদালতে স্বীকারোক্তি রেকর্ড করা হয়। এ সময় সে নিজে, বাসচালক নূরুজ্জামান ও নূরুজ্জামানের খালাতো ভাই বোরহান মিলে তানিয়াকে জোরপূর্বক পালাক্রমে ধর্ষণ করে হত্যা করেছে বলে স্বীকার করে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সারোয়ার জাহান সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ইফতারের পর লালনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন কোর্ট ইন্সপেক্টর তফিকুল ইসলাম তৌফিক।

এর আগে মামলার প্রধান আসামি বাসচালক নূরুজ্জামান নূরু (৩৯) গত রোববার একই আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছিলেন। নূরুজ্জামানও তার স্বীকারোক্তিতে এই তিনজনের ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছিলেন। নূরুজ্জামান ও লালনসহ আরও তিন সন্দেহভাজন আসামি রফিকুল ইসলাম, খোকন মিয়া ও বকুল মিয়াকে আদালত থেকে গত ৮ মে থেকে ১৫ মে পর্যন্ত ৮ দিনের রিমান্ডে দেয়া হয়েছিল। পুলিশ সুপার মশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) ধারণা দিয়েছেন, রিমান্ডে থাকা অন্য তিন আসামির মধ্যেও কেউ জবানবন্দি দিতে পারে। তবে ১৫ মে পর্যন্ত রিমান্ডের মেয়াদ থাকায় আগামীকাল বাকি আসামিদের আদালতে সোপর্র্দ করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, পলাতক বোরহানকে ধরতে পুলিশের অভিযান চলছে।