menu

৩ জেলায় ৬ ইউপির উপনির্বাচনে শেষ মুহূর্তের প্রচারে ব্যস্ত প্রার্থীরা

  • ঢাকা , রবিবার, ১৮ অক্টোবর ২০২০
image

ফটিকছড়ি

প্রতিনিধি, ফটিকছড়ি (চট্টগ্রাম)

জমে উঠেছে ফটিকছড়ি উপজেলার দুই ইউপির নির্বাচন। আগামী ২০ অক্টোবর এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে ঘিরে শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে নির্বাচনী প্রচারা। নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রতিদিন বিভিন্ন দলের প্রার্থী ও কর্মীদের পদচারণায় হাট-বাজারের চায়ের দোকান, ক্লাব, সমিতির অফিস, পাড়া-মহল্লাসহ সরগরম হয়ে উঠেছে নির্বাচনী মাঠ।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, নানুপুর ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৭ জন ও সুয়াবিল ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৪জন প্রার্থী দলীয় ও তাদের পছন্দের প্রতীক নিয়ে এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সুয়াবিলে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জয়নাল আবেদিন নৌকা, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ ইয়াকুব ধানের শীষ, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ হায়াত আনারস ও স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল আলম চশমা প্রতীকে নির্বাচনে লড়ছেন। অন্যদিকে, নানুপুর ইউপিতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী শফিউল আজম নৌকা, বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী জয়নাল আবেদিন ধানের শীষ, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মুহাম্মদ আমান উল্লাহ ঘোড়া, মুহাম্মদ নুরুল হুদা আনারস, মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন টেবিল ফ্যান, মুহাম্মদ ছাবের উদ্দিন মোটরসাইকেল ও সৈয়দ মঈনুদ্দিন রজনীগন্ধা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির বলেন, ইউপি নির্বাচন আইন মোতাবেক অনুষ্ঠিত হবে।

নাচোল

জেলা বার্তা পরিবেশক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

আগামী ২০ অক্টোবর চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর ও নাচোলের ২ ইউপিতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে শেষ মুহূর্তে প্রচারে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরা। উপ-নির্বাচনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার অনুপগর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী এবং নাচোল উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নে ২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

অনুপনগরে নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মো. সেরাজুল ইসলাম। বিএনপি সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী মোটরসাইকেল প্রতীকের জহুরুল হক বিশ^াস বুলু। অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের আব্দুল লতিফ মেম্বার তিনিও প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। এ ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা ৮ হাজার ৮শ’ ৮৮।

ফতেপুরে নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মো. খাইরুল ইসলাম। ধানের শীষ প্রতীকের সাদির আহম্মেদ ভুলু। এ ইউনিয়নে ২৮ হাজার ৮শ’ ১৮ জন ভোটার রয়েছেন।

এদিকে জেলা নির্বাচন অফিসার মোতাওয়াক্কিল রহমান জানান, নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার জন্য সকল ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত, অনুপনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. সাদেকুল ইসলাম বাচ্চু ও ফতেপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. ইসরাইল হক মৃত্যুবরণ করায় পদ দু’টি শূন্য হওয়ায় এ দু’টি ইউনিয়নে আগামী ২০ অক্টোবর উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

কচুয়া

প্রতিনিধি, কচুয়া (চাঁদপুর)

চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার ১নং সাচার ও ১০নং গোহট উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে ২০ অক্টোবর ভোট গ্রহণ। মাত্র ৫ মাস মেয়াদের এ উপ-নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৮ জন প্রার্থী।

নির্বাচনকে ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করছে উপজেলা নির্বাচন অফিস। কচুয়া উপজেলার ১নং সাচার ইউনিয়নে মোট ভোটার ১৯৮১৯ জন। তার মধ্যে পুরুষ ১০২৯০ জন, মহিলা ৯৫২৯ জন। আর ১০নং গোহট উত্তর ইউনিয়নে মোট ভোটার ২০৬১৯ জন। তার মধ্যে পুরুষ ১০২০৮ জন, মহিলা ১০৪১১ জন। চলতি বছর ৪ এপ্রিল সাচার ইউনিয়নের ২ বারের চেয়ারম্যান ওসমান গণি মোল্লা মারা যাওয়ায় আর ১০নং গোহট উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাজী আ. হাই মুন্সী মার্চে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ায় চেয়ারম্যানের পদগুলো শূন্য হয় আর অল্প মেয়াদী ওই নির্বাচনকে গীরেই প্রার্থীদের ব্যাপক প্রস্তুতি। বড় রাজনৈতিক দলসমূহের সমর্থিত প্রার্থীদের অংশগ্রহণের ফলে অনুষ্ঠিতব্য ওই নির্বাচনে হাড্ডা হাড্ডি লড়াইয়ের আশা করছেন স্থানীয় লোকজন।

সাচার ইউনিয়নে প্রতিদ্বন্দ্বী চার চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মো. মুনির হোসেন (নৌকা), বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আসকর আলী (ধানের শীষ), স্বতন্ত্রপ্রার্থী মোশাররফ হোসেন ভূইয়া (আনারস), ও সেলিম আহাম্মেদ (চশমা)। অপরদিকে গোহট ইউনিয়নের বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী কবির হোসেন (নৌকা), বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মোস্তফা কামাল (ধানের শীষ), স্বতন্ত্রপ্রার্থী সাইদ মোরশেদ (আনারস), ও শরীফুল হক শাহাজী (মোটর সাইকেল)।