menu

শ্রীপুরের হারিয়ে যাওয়া কামাল ১০ বছর পর দুর্গাপুরে উদ্ধার

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, দুর্গাপুর (নেত্রকোনা)
  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০১৯
image

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে বেড়াতে এসে গাজীপুরের শ্রীপুর থেকে হারিয়ে যাওয়া ব্যক্তির সঙ্গে মিল খুজে পান। ছবি তুলে ঐ ব্যক্তির পরিবারের কাছে পাঠালে গত মঙ্গলবার তার ভাই ডা. মাহবুব আলম দুর্গাপুরে এসে হাতের কাটা আঙ্গুল দেখে তার নাম কামাল মিয়া (৩৮) বলে সনাক্ত করেন। ডা: মাহবুব জানান, গাজীপুরে শ্রীপুর উপজেলার সাঙ্গুর নানদিয়া গ্রামের প্রয়াত ছামছুল ইসলাম ফকিরের ছেলে কামাল মিয়া ২০০৯ সালে বাসা থেকে বের হয়ে আর ফিরে যায়নি। ৪ ভাই এক বোন আর তার মাকে নিয়ে সংসার। পরিবারের ২য় সন্তান কামাল। ছোট থেকে পড়াশোনায় ভালো থাকলেও বাবা মারা যাওয়ার পর পরিবারটি এলোমোলা হয়ে যায়। বিভিন্ন মাজারে ঘুরতে শুরু করে কামাল। ক্রমশ হারিয়ে ফেলতে শুরু করে মানসিক ভারসাম্য। বিয়ে করাও হয় নি তার। বিভিন্ন এলাকায় খোঁজাখুঁজি করেও কোন সন্ধান মেলেনি তার। এখন খবর পেয়েছেন দুর্গাপুরের অলিগলিতে পাগল কামাল ঘুরে বেড়াচ্ছে। আবারও আশায় বুক বেধেঁছে ছেলে হারা মা রাবেয়া খাতুন। দুর্গাপুরে এসে বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে তেরিবাজার ফেরিঘাটে দেখা মেলে কামালের। দেখেই ছোট ভাইকে চিনতে পারেন তিনি। স্থানীয় পৌর ওয়ার্ড কাউন্সিলর বাদল মিয়া দুর্গাপুর থানায় নিয়ে আসেন। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মিজানুর রহমান পরিবারের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গাজীপুরের শ্রীপুর থানা,স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলে প্রমান হয়েছে কামাল তাদের পরিবারের সদস্য। তাই কামালকে পবিারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। হারিয়ে যাওয়া সন্তান পেয়ে তার পরিবার এখন খুশি। উল্লেখ্য পাগল কামাল প্রায় দুই বছর পুর্বে মুখে বড় বড় দাড়ি ও মাথায় জট ওয়ালা লম্বা চুল ও লেংটি পরে দুর্গাপুরে আসে। স্থানীয় লোকদের সাথে তার মামা ভাগ্নে সর্ম্পক গড়ে উঠে। প্রতিদিন সবার কাছ থেকে ১০ টাকা করে সাহায্য নিয়ে একটি পরিত্যক্ত স্কুল ঘরে রাত্রি যাপন করত।