menu

শ্বশুরবাড়ির বাঁশঝাড়ে নববধূর মরদেহ

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, নন্দীগ্রাম (বগুড়া )
  • ঢাকা , বুধবার, ১৫ মে ২০১৯

বগুড়ার নন্দীগ্রামে নববধূকে গলাটিপে হত্যা করার ঘটনা ঘটেছে। গত সোমবার ভোরে স্বামীর বাড়ির পাশের বাঁশঝাড়ে ফারজানা খাতুনের মরদেহ দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। নিহত ফারজানা খাতুনের পিতা আবুল কালাম আজাদ জানান, নিহতের স্বামী রকি হোসেন তার প্রথম স্ত্রীকে তালাক দেয়ার পর ফারজানা খাতুনকে বিয়ে করে। বিয়ের সময় ২৫ হাজার টাকা যৌতুক দেয়ার কথা হয়। যৌতুকের টাকা না পেয়েই ফারজানা খাতুনকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে। তবে প্রতিবেশীরা বলেছে, ফারজানা খাতুন স্বামীর বাড়িতে আসার পর থেকেই পরকীয়া নিয়ে স্বামীর সঙ্গে দ্বন্দ্ব-কলহ দেখা দেয়। জানা গেছে, ১ মাস পূর্বে নন্দীগ্রাম উপজেলার ৪নং থালতা মাঝগ্রাম ইউনিয়নের আগাপুর গ্রামের আবুল কালাম আজাদের কিশোরী কন্যা ফারজানা খাতুন (১৫) কে পারশন গ্রামের মঞ্জুরুল ইসলামের ছেলে রকি হোসেনের (১৯) সঙ্গে বিয়ে দেয়া হয়। কুমিড়া এসআই নূর মোহাম্মদ বলেছে, ফারজানা খাতুনের গলায় ও গালে আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। ধারণা করা হচ্ছে তাকে গলাটিপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। থানার অফিসার ইনচার্জ শওকত কবির বলেছে, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। হত্যা ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।