menu

লকডাউনে খাদ্য সংকটে হনুমান

সংবাদ :
  • রফিকুল আলম, মেহেরপুর
  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০
image

জেলা শহরের মার্কায মসজিদ পাড়ায় মেহেরপুর সরকারি কলেজের রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আবদুল্লাহ আল আমিনের বাড়ি। গত মঙ্গলবার পরিবারের আহারের জন্য রুটি তৈরি করছিলেন তার বীথি। এ সময় তাদের বাড়িতে একদল হনুমান আসে খাদ্যাভাবে। বীথি প্রথমে কয়েকটি সবজি দেয়। কিন্তু সবজি নয়। তাদের তখন রুটি খাওয়ার ইচ্ছে। সামনের পায়ের আঙুল তুলে ইশারায় বুঝিয়ে দেয় সে। এরপর আটজনের হনুমান দলকে রুটি দেয়া হলে মহানন্দে খেতে থাকে। হনুমানের আর্জির মুখে তাদের নতুন করে ময়দা মেখে রুটি বানিয়ে সবগুলো হনুমানকে পেটপুরে রুটি খাওয়ান। হনুমানের এ ধরনের আবদার দেখে রীতিমতো হতভম্ব হয়ে গেছে বীথি ও তার পরিবার। তারা মুঠোফোনে বিষয়টি জানালে গিয়ে দেখা যায় ততক্ষণে বাড়ির প্রাচীরে খেলায় মত্ত হয়ে পড়েছে হনুমানেরা। বীথির মতে এই করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সব দোকান বন্ধ বলেই ওরা এ বাড়ি সে বাড়িতে ছুটে বেড়াচ্ছে খাবারের জন্য।

আবদুল্লাহ আল আমিন বলেন, হোটেল রেস্তরাঁ, বিভিন্ন দোকানে তারা খাবার পেত। লকডাউনে সব বন্ধের কারণে খাদ্য সঙ্কটে শ’দুয়েক হনুমান সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ছুটে বেড়াচ্ছে। খাদ্যের সন্ধানে এক এলাকা থেকে অন্য এলাকায় যাওয়ার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মৃত্যুর ঘটনাও ঘটছে।