menu

বাগেরহাটে প্রচন্ড গরম বাড়ছে ডায়রিয়া রোগী

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, বাগেরহাট
  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০১৯

প্রচন্ড তাপদাহ ও বিশুদ্ধ পানির অভাবে বাগেরহাটের চিতলমারীতে ডাইরিয়ার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। গত এক সপ্তাহে শতাধিক ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা নিয়েছে। অথচ চিতলমারী হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি গত সপ্তাহে ৭৫ থেকে ৮০ জন ডাইরিয়ার রোগী স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি হয়েছে। দিন যতই বাড়ছে গরমের তীব্রতা ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে। দরিদ্র মানুষের মধ্যে বিশুদ্ধ পানিরও সঙ্কট দেখা দিয়েছে। আর এ কারণে ডায়রিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে অধিকাংশ শিশু ও নারী। স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে আসা উপজেলার নালুয়া গ্রামের গাউস শেখ জানান, তার ৭ বছর বয়সী শিশুপুত্র মিরাজের ডায়রিয়া দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে এসেছেন। তবে রোগীদের থাকার ভালো কোন ব্যবস্থা না থাকায় মেঝেতে থাকতে হচ্ছে। এ সময় উপজেলার কলিগাতী গ্রামের ময়না বেগম জানান তার দুই শিশু পুত্র আলামিন (৫) ও দেড়বছর বয়াসের সন্তান তরিকুলের সোমবার রাত থেকে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হলে মঙ্গলবার ভোর বেলা হাসপাতালে নিয়ে এসেছি এবং সরকারি ভাবে ডায়রিয়া স্যালাইন ওষুধ দিলেও এখন পর্যন্ত কোন পরিবর্তন হয়নি। কুরমণি গ্রামের ডায়রিয়ায় আক্রান্ত চন্দ্রা ও তার পরিবারের লোকজন জানান, সারাদিন মেঝেতে পড়ে আছি। কোন ভালো ব্যবস্থা নেই এখানে। আমাদের অর্থ নেই বলে ভাল হাসপাতাল বা ক্লিনিকে যেতে পারছিনা। চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে সরেজমিনে দেখা গেছে, এখানে ডায়রিয়া ওয়ার্ডে রোগীদের জায়গা দেয়ার মতো কোন ব্যবস্থা নেই। অধিকাংশ রোগীকে নিচে মেঝেতে রাখা হয়েছে। এসব রোগীদের মধ্যে অধিকাংশ শিশু ও নারী। স্বাস্থ্যকেন্দ্র ছাড়াও প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি হয়েছেন অনেকে। চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন জানান, তীব্র গরম ও বৈরি আবহাওয়ার কারণে অন্যন্য বছরের তুলনায় হঠাৎ করে এ বছর ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। তবে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে পর্যাপ্ত রোগীদের থাকার ব্যবস্থা না থাকায় সাময়িক সমস্যা হচ্ছে। আগত রাগীদের সার্বিক সেবা দেয়া হচ্ছে বলেও তিনি জানান এভাবে ডায়রিয়ার রোগী আসতে থাকলে হাসপাতালে কলেরা স্যালাইনের সঙ্কট দেখা দিতে পারে।