menu

চসিক মেয়রের কাছে স্মারকলিপি

খাল খনন সম্প্রসারণ উচ্ছেদ আতঙ্কে জেলেরা

সংবাদ :
  • চট্টগ্রাম ব্যুরো
  • ঢাকা , বুধবার, ১৫ মে ২০১৯

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের সঙ্গে গত রোববার চসিক কনফারেন্স হলে সাক্ষাৎ করলেন নগরীর ফিরিঙ্গি বাজার ওয়ার্ডের কয়েকশ’ বাসিন্দা। সাক্ষাৎকালে তারা সিটি মেয়রের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেন। এই স্মারকলিপিতে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ফিরিঙ্গি বাজারস্থ বংশাল রোড হতে টেকপাড়ার শেষ প্রান্ত পর্যন্ত টেকপাড়া খাল খনন ও খালের পাড় সম্প্রসারণ প্রকল্পের কাজের ধরন পুনর্বিবেচনার কথা উল্লেখ রয়েছে। স্মারকলিপিতে তারা জলাবদ্ধতা নিরসনে গৃহীত প্রকল্পের কথা উল্লেখ করে বলেন, চট্টগ্রামে জলাবদ্ধতা নিরসন প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক সদিচ্ছার ফসল।

এজন্য তারা প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে। এই জলাবদ্ধতা প্রকল্পের আওতায় ফিরিঙ্গি বাজারস্থ মহিম দাশ রোড চুড়িয়াল টুলী লেইন হতে শুরু হয়ে বংশাল রোড, নোয়াপাড়া ১,২,৩ নং গলির দক্ষিণ পাশে এবং টেকপাড়ার পূর্ব পাশে বান্ডেল খাল প্রবাহিত হয়ে কর্ণফুলী নদীর সঙ্গে মিলিত হয়েছে। যা খনন ও নালা সম্প্রসারণের জন্য প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। এই প্রসঙ্গে স্মারকলিপিতে তারা আরও উল্লেখ করেন, খাল পাড়ের ইটের দেয়ালযুক্ত খালের সীমানা দেয়া রয়েছে। সীমানা দেয়াল বাইরে দরিদ্র ও নিম্নমধ্যবিত্ত প্রায় ৩০/৪০ হাজার মানুষ যুগ যুগ ধরে বসবাস করে আসছে।

সাম্প্রতিক সময়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশিত চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক উক্ত খাল খননের মাধ্যমে উন্নয়ন প্রকল্প হাতে নিলে অত্র এলাকার বাসিন্দারা অত্যন্ত আনন্দিত হন। পাশাপাশি প্রকল্পের আওতায় খাল খনন এর সঙ্গে সঙ্গে খাল সম্প্রসারণের কাজ অত্র এলাকায় বসবাসরত বাসিন্দাদের আতঙ্কিত করে তুলছে। অত্র এলাকায় উক্ত খাল পাড়ের অধিকাংশ বাসিন্দা জেলে সম্প্রদায়ের লোক ও হতদরিদ্র।

তারা খাল পাড়ের অল্প জায়গায় ঘর করে বসবাস করে আসছে। এই মুহূর্তে খাল সম্প্রসারণের কারণে তাদের উচ্ছেদ করলে তারা তাদের পূর্ব-পুরুষদের থেকে উত্তরাধিকারী সূত্রে পাওয়া ভিটে মাটি হারিয়ে উদ্বাস্তুতে পরিণত হবে এবং তাদের মাথা গুজিবার মতো আর কোন জায়গা থাকবে না। এমতাবস্থায় স্মারকলিপি দাতারা সরকারের উন্নয়ন কর্মসূচিতে অত্যন্ত আনন্দিত হলেও নিজেদের ভিটে মাটি হারিয়ে উদ্বাস্তু হবার ভয়ে ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে। বলাবহুল্য উক্ত খালটির প্রায় ৬০০ মিটার পর্যন্ত যথেষ্ট প্রশস্ত এবং তাতে কোন জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

সিটি মেয়র তাদের বক্তব্য শুনে বলেন, বর্তমান সরকার জনবান্ধব সরকার। গ্রাম-গঞ্জের মানুষের প্রতি প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সর্বদা আন্তরিক। মানুষের কষ্ট লাঘবে সরকার বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। জনসাধারণকে উচ্ছেদ নয়- পুনর্বাসনই এ সরকারে মূল লক্ষ্য। তাই ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসন না করে, উচ্ছেদের মতো গর্হিত কাজ এ সরকার করবে বলে তিনি মনে করেন না। সিটি মেয়র তাদের আশ্বস্ত করে বলেন আপনাদের দাবি-দায়াসমূহ যথাযর্থ কর্তৃপক্ষ-এর সঙ্গে আলোচনা করা হবে এবং তা আশু সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।