menu

আবহাওয়া অনুকূল থাকলে আমনের বাম্পার ফলন

সংবাদ :
  • সংবাদদাতা, পোরশা (নওগাঁ)
  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১০ অক্টোবর ২০১৯
image

পোরশা (নওগাঁ) : অনুকূল আবহাওয়ায় আমনের ভালো ফলনের সম্ভাবনায় খুশি কৃষক -সংবাদ

নওগাঁর বরেন্দ্র অঞ্চলের চারিদিকে এখন সবুজের সমারোহ। ফসলের মাঠ যেন সবুজ বিছানা। যতদূর চোখ যায় শুধু সবুজ আর সবুজ। কৃষকের মোনে দোলা দিচ্ছে এক ভিন্ন আমেজ। সময়মতো বৃষ্টি এবং আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এ বছর সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে আমনের বাম্পার ফলনের। বরেন্দ্র অঞ্চলের মধ্যে বিশেষ করে পোরশা উপজেলার ৬ ইউপিতে এবারে আমন ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে।

পোরশা উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, চলতি আমন মৌসুমে পোরশা উপজেলায় ১৬ হাজার ৮৭০ হেক্টর জমিতে আমন চাষ করা হয়েছে। এখন পর্যন্তু আমনের গাছ বেশ ভাল রয়েছে। বিগত কয়েক বছরের তুলনায় এ বছর এখন পর্যন্তু আমনের ক্ষেতে তেমন কোন রোগ বালাই দেখা যায়নি। আমনের গাছ ভাল রাখতে আর ধানের উৎপাদন বাড়াতে কৃষকরা দিন রাত সমানতালে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। এখানকার কৃষকরা স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন এলাকার বিশাল জনগোষ্ঠীর খাদ্য চাহিদা মেটাতে দিন রাত যেন সমানতালে পরিশ্রম করে আসছেন। সবুজে ঘেরা আমনের মাঠ রেখে যেন এক মুহূর্তের জন্যও বসে বিশ্রাম নেয়ার সময় নেই কৃষকদের। কৃষকরা এখন ক্ষেতের আগাছা তোলা, পোকামাকড় দমন করতে স্প্রে করা, জমির পানি দেখাসহ বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন। শেষ পর্যন্ত আবহাওয়া ভাল থাকলে এ বছর পোরশা উপজেলায় প্রায় লক্ষাধিক মেট্রিকটন আমন ধান উৎপাদন হবে বলে আশা করছেন উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর।

উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ফসলের মাঠ ঘুরে দেখা গেছে, কৃষকদের দম ফেলার সুযোগ নেই। ধান গাছ পরিচর্যা, কীটনাশক স্প্রে করা আর আকাশের পানি জমিতে আটকিয়ে রাখার কাজে সারাক্ষণই ব্যস্ত রয়েছেন কৃষকরা। যেন দ্রুত গতিতে বেড়ে উঠছে আমনের গাছ। মাঠে মাঠে হাওয়ায় দুলছে আমন গাছের পাতা। আর আনন্দে দুলছে কৃষকদের মন। এবারে মাঠের ফসলে তেমন কোন রোগ বালাই না থাকায় বেশ ফুরফুরে মেজাজে রয়েছেন কৃষকরা। কোন প্রকার প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে এবারে আমনের বাম্পার ফলন হবে বলে আশরা করছেন কৃষকরাও। উপজেলার কয়েকজন কৃষক জানান, অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছর আমন ক্ষেত এখন পর্যন্তু ভাল রয়েছে। তারা জানান, শুধু নিজেদের নয়, তাদের এলাকার সকল কৃষকদের আমন ক্ষেত এখন পর্যন্ত চোখে পড়ার মতো রয়েছে। পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত ও আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় আর তেমন কোন প্রকার রোগ বালাই না থাকার কারনে এবারে আমন ধানের বাম্পার ফলন হবে বলে আশা করছেন তারা। একই সাথে আমনের ভাল দাম পেলেই তারা লাভবান হবেন বলে জানান। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মাহফুজ আলম জানান, এবারে তাদের লক্ষ মাত্রা পুরন করে আমন চারা রোপণ করা হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে আমনের উৎপাদন লক্ষমাত্রা শতভাগ অর্জিত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেছেন।