menu

লালমনিরহাট

মামলা তুলে নিতে বাদীকে আটকের অভিযোগ, ৯৯৯-এ ফোন করে উদ্ধার

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, লালমনিরহাট
  • ঢাকা , রবিবার, ১৮ অক্টোবর ২০২০

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় মামলা তুলে নিতে বাদীর ছেলে মাসুদ পারভেজ মাসুমকে আটক করার অভিযোগ উঠেছে একটি দখলবাজ গ্রুপের বিরুদ্ধে। পরে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বর ফোন করে উদ্ধার পান সেই ব্যবসায়ী।

গতকাল নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তাসহ বিচার চেয়ে আদিতমারী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ওই ব্যবসায়ী। ব্যবসায়ী মাসুদ পারভেজ মাসুম উপজেলার সাপ্টিবাড়ি ইউনিয়নের পর্বদৈলজোর গ্রামের মিয়ার উদ্দিন ওরফে মেহের আলীর ছেলে।

অভিযোগে জানা গেছে, গরুর খামার ও গরুর ব্যবসা করে সংসার চালাচ্ছেন মাসুদ পারভেজ মাসুম। দেড় মাস আগে তার প্রতিবেশী মৃত মোজাহার আলীর ছেলে আবদুর রহমান, মোকাব্বেল ও জয়নাল আবেদীন গংরা মাসুদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে জমি দখলের চেষ্টা করে। এ ঘটনায় মাসুদের বাবা মিয়ার উদ্দিন ওরফে মেহের আলী বাদী হয়ে দুইটি মামলা দায়ের করেন। যা বর্তমানে আদালতে বিচারাধীন। এ মামলায় শাস্তিভোগের আশঙ্কায় মামলা তুলে নিতে বাদী ও তার ছেলে ব্যবসায়ী মাসুদ পারভেজ মাসুমকে চাপ দিতে থাকেন আসামিরা।

এরই জেরে শুক্রবার সন্ধ্যায় ব্যবসায়ী মাসুদ পারভেজ মাসুম গরু কিনে গাড়িতে করে বাড়ি ফিরলে বাড়ির পাশে আবদুর রহমান গংরা তাকে আটক করে মামলা তুলে নেয়ার হুমকি দেয়। মামলা তুলে না নিলে তাকেসহ গরুভর্তি গাড়িও গায়েব করার চেষ্টা করে। অবশেষে জীবন বাঁচাতে হটলাইন ৯৯৯ নম্বর ফোন করে সহায়তা চাইলে পুলিশ গিয়ে ব্যবসায়ী মাসুদ পারভেজ মাসুমকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে। এ সময় আবদুর রহমান গংরা পুলিশের উপস্থিতি বুঝতে পেয়ে পালিয়ে যায়।

এতেই থেমে থাকেনি দখলবাজ গ্রুপ। ওই দিন রাতে ব্যবসায়ী মাসুদ স্থানীয় ভেলাবাড়ি বাজারে এলে আবদুর রহমান গংরা ভারাটে সন্ত্রাসী দল নিয়ে বাজারে মহড়া প্রদর্শন করে। বিষয়টি বুঝতে পেয়ে আত্মগোপন করেন ব্যবসায়ী মাসুদ পারভেজ মাসুম। মামলা তুলে না নিলে মাসুমকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে চলে যায় সন্ত্রাসীরা। এতে নিজের ও পরিবারের সদস্যদের জীবনের শঙ্কায় রয়েছে বলেও অভিযোগ করেন ব্যবসায়ী মাসুম।

এ ঘটনায় নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে আট জনের নামসহ অজ্ঞাত আরও ৫/৭ জনের বিরুদ্ধে আদিতমারী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ব্যবসায়ী মাসুদ পারভেজ মাসুম।

ব্যবসায়ী মাসুম বলেন, দখলবাজ আবদুর রহমান গংরা আমার বাড়িতে হামলা ভাঙচুর করে জমি দখলের চেষ্টা করেছে। এ নিয়ে মামলা করায় তারা আমাকে সপরিবারে হত্যার পরিকল্পনা করছে। বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ির পাশ থেকে আমাকে আটকের চেষ্টা করে কিন্তু পুলিশ আসায় আমাকে ছেড়ে পালিয়ে যায়। রাতে আবারও বাজারে তল্লাশি করেছে। দেখা পেলে আমাকে হয়তো তারা মেরে ফেলত। পরিবার নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে দাবি করেন তিনি।

আদিতমারী থানার ওসি (তদন্ত) গুলফামুল ইসলাম মণ্ডল বলেন, ৯৯৯ নম্বরে ফোন করায় পুলিশ গিয়ে ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করেছে। তার দেয়া অভিযোগটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।