menu

ভারতীয় বিশেষজ্ঞদের প্রশিক্ষণে আইসিএমএবি’র কস্ট অডিটিং কর্মশালা

  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২১
image

কস্ট অডিট বিষয়ে এক বিশেষ সিরিজ কর্মশালার আয়োজন করেছে ইনস্টিটিউট অব কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএমএবি)। সম্প্রতি এই কর্মশালায় ‘কস্ট অডিটং টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রি’ পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সচিব লোকমান হোসেন মিয়া। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সাফা প্রেসিডেন্ট জনাব একেএম দেলোয়ার হোসেন। রিসোর্স  পার্সন ছিলেন ভারতের কস্ট অডিট বিশেষজ্ঞ সিএমএ নিরাজ ডি. জোশি।

প্রধান অতিথি লোকমান হোসেন মিয়া বলেন, বাংলাদেশ এখন স্বয়ংসম্পূর্ণ। এখন কোন বিষয়েই আমরা কারও ওপর নির্ভরশীল নই। কেউই এখন না খেয়ে থাকে না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাহসী পদক্ষেপের কারণে করোনার কঠিন পরিস্থিতিকেও আমরা মোকাবিলা করেছি সাফল্যের সঙ্গে। আমাদের সব কাজের জবাবদিহিতা জনগণের কাছে। আজকে আমরা যে অবস্থানে যে যে রয়েছি, সবই সাধারণ মানুষের উপার্জিত পয়সায়। কাজেই আমাদের কাজের মাধ্যমেই তাদের কাছে জবাবদিহিতা করতে হবে। তিনি এই কর্মশালাকে অত্যন্ত  সময়োপযোগী হিসেবে উল্লেখ করেন এবং সেই সঙ্গে সিএমএ পেশাদারদের কাজের মাধ্যমে দেশ ও জাতির সবার জন্য নিবেদিতপ্রাণ ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

বিশেষ অতিথি একেএম দেলোয়ার হোসেন এফসিএমএ সিএমএ পেশাদারদের জন্য কাজের সুযোগ আরও বিস্তৃত করার, যাতে করে তারা জাতীয় অর্থনৈতিক উন্নয়নে পেশাগত দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারেন, এজন্য তিনি মাননীয় সচিবের কাছে যথাযথ সহায়তার আবেদন জানান। সেইসঙ্গে তিনি  ভারতের আইসিএআইকে এই কর্মশালায় গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য ধন্যবাদ জানান।

আইসিএমএবি প্রেসিডেন্ট মো. জসিম উদ্দিন আকন্দ এফসিএমএ তার বক্তব্যে কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্টিং পেশা এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ খাতের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন। ইনস্টিটিউটের পক্ষ থেকে তিনি সরকারি নির্দেশনা অনুসারে সব লিমিটেড কোম্পানিতে কস্ট অডিট বাধ্যতামূলক করার বিষয়টি যথোপযুক্তভাবে প্রয়োগ করার মাধ্যমে জাতীয় অর্থনীতির উন্নয়নের জন্য প্রধান অতিথির দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। কাউন্সিল সদস্য ও আইসিএমএবি’র সাবেক প্রেসিডেন্ট, বর্তমানে কস্ট অডিট অ্যান্ড প্রফেশনাল কনসালটেন্সি সেল কমিটির চেয়ারম্যান এএসএম শায়খুল ইসলাম এফসিএমএ সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে অর্থনীতির সংশ্লিষ্ট সব খাতে কস্ট অডিটিংয়ের প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে উল্লেখ করেন।

আইসিএমএবি ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. মামুনুর রশীদ এফসিএমএ অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন এবং আলোচ্য বিষয় নিয়ে নিজের মতামত উপস্থাপন করেন। আইসিএমএবি সেক্রেটারি মো. মনিরুল ইসলাম অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন। আইসিএমএবি ভাইস প্রেসিডেন্ট আবু বকর সিদ্দিক এফসিএমএ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী সবার প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।