menu

পুঁজিবাজারে বেড়েছে বিদেশি বিনিয়োগ

সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮

‘২০১৯ সাল পুঁজিবাজার ভালো থাকবে’ এ প্রত্যাশায় পুঁজিবাজারে ফিরতে শুরু করেছেন প্রবাসী ও বিদেশি বিনিয়োগকারীরা। ফলে অক্টোবরের তুলনায় নভেম্বরের দু’ধরনের বিনিয়োগকারীদের শেয়ার বিক্রির প্রবণতা কিছুটা কমেছে। তার বিপরীতে শেয়ার কেনার প্রবণতাও বেড়েছে। গতকাল বুধবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান থেকে শুরু করে, স্টক এক্সচেঞ্জ, মার্চেন্ট ব্যাংক, আইসিবিসহ প্রায় সব প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা বলছেন, ২০১৯ সাল পুঁজিবাজার ভালো থাকবে।

সর্বশেষ ৪ ডিসেম্বর বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. খায়রুল হোসেন বলেন, ২০১৯ সালে পুঁজিবাজার ভালো হবে। এর আগে আইসিবি’র এমডি বলেছেন, নির্বাচনের পর থেকে পুঁজিবাজার ভাল হবে। তাদের এই প্রত্যাশায় আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চলে যাওয়া বেশ কিছু বিনিয়োগকারী নতুন করে বিনিয়োগে ফিরছেন। তারা বলছেন, চলতি ডিসেম্বরে নির্বাচন শেষ হলেই নতুন সরকার গঠন করবে। নতুন সরকার গঠন হলে পুঁজিবাজারও ভালো হবে। সেই ধারণায় আবার বিনিয়োগ করছি।

ডিএসই’র পরিসংখ্যান অনুসারে নভেম্বরে প্রবাসী ও বিদেশিরা ৩২৩কোটি ৮৪ লাখ ৮৫ হাজার ৯৫১টাকার শেয়ার কিনেছেন। তার বিপরীতে শেয়ার বিক্রি করেছেন ৩৪৬ কোটি ৩৫ লাখ ১৮ হাজার ৪৪৪ টাকার। সবমিলে নভেম্বরে লেনদেন হয়েছে ৬৭০ কোটি ২০ লাখ ৪ হাজার ৩৯৫ টাকা।

অক্টোবরে তারা ২৮২ কোটি ৯০ লাখ ৯৭ হাজার ৪৫৩ টাকা শেয়ার কেনার বিপরীতে ৪৮৪ কোটি ১৮ লাখ ৯১ হাজার ৭৭৫ টাকার শেয়ার বিক্রি করেছেন তারা। সবমিলে লেনদেন হয়েছিল ৭৬৭ কোটি ৯ লাখ ৮৯ হাজার ২২৯ টাকার। সেই হিসেবে অক্টোবরের তুলনায় নভেম্বরে বিদেশিরা ১৩৭ কোটি ৮৩ লাখ ৭৩ হাজার ৩৩১ টাকার কম শেয়ার বিক্রি করেছে। পাশাপাশি ৪০ কোটি ৯৩ লাখ ৮৮ হাজার ৪৯৮ টাকা বেশির শেয়ার কিনেছেন। শেয়ার কেনার বিপরীতে শেয়ার বিক্রির প্রবণতা কমলেও নভেম্বরে পুঁজিবাজারে প্রকৃত বিনিয়োগ কমেছে ২২ কোটি ৫০ লাখ ৩২ হাজার ৪৯৩টাকা। কমেছে মোট লেনদেনের পরিমাণ। সেপ্টেম্বরে ২১২ কোটি ৩৪ লাখ টাকার শেয়ার বিক্রি বিপরীতে ২৪৭ কোটি সাড়ে ৫০ লাখ টাকার শেয়ার কিনেছিল। সেই মাসে মোট লেনদেন হয়েছিল ৪৫৯ কোটি ৮৪ লাখ টাকা।

এ বিষয়ে ডিএসইর পরিচালক রকিবুর রহমান বলেন, নির্বাচনের পর পুঁজিবাজার ভালো হবে এমন খবরে, দেশীয় বিনিয়োগকারীর পাশাপাশি বিদেশিরাও কম দামে থাকা শেয়ার কেনা শুরু করেছে। তিনি বলেন, ডিএসইতে কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে চীনা কনসোটিয়ামের অর্থ ও আইসিবি ২ হাজার কোটি টাকার ফান্ড পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ শুরু হওয়ার পর থেকে বিদেশিদের মধ্যে আস্থা একটু বাড়ছে।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সাবেক চেয়ারম্যান ড. এবি মির্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, কিছু বিনিয়োগকারী হয় তো তাদের পছন্দসই শেয়ার কিনছেন। কিন্তু নির্বাচনকে সামনে রেখে এখনও পুঁজিবাজারের বিনিয়োগ নিয়ে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের মধ্যে দো-টানা অবস্থা রয়েছে।

নতুন সরকার গঠনের পর বিনিয়োগ বাড়বে বলে আশাব্যক্ত করেন বিএসইসির সাবেক চেয়ারম্যান ড. এবি মির্জা আজিজুল ইসলাম।