menu

তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য বিসিআইয়ের ১২ দাবি

    সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ ২০২০

দেশের শিল্প খাতের প্রতিনিধিত্বকারী একমাত্র জাতীয় সংগঠন বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজ (বিসিআই) ২০২০-২১ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটে মাইক্রো ও ক্ষুদ্র শিল্প খাতে তরুণ শিল্প উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করতে ১২ দফা দাবি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চলমান প্রাক-বাজেট আলোচনা সভায় আগামীকাল তুলে ধরবে বলে জানা গেছে। এছাড়া বেশকিছু প্রস্তাবনা সংগঠনটি বাজেটে অন্তর্ভুক্তির জন্য সুপারিশ করবে বলে জানা গেছে।

বিসিআইয়ের ওই ১২ দফা দাবির মধ্যে রয়েছে, তরুণদের উদ্যোগে অর্থায়নের জন্য বাজেটে পুনরায় বিশেষ তহবিল গঠন ও সুষ্ঠু নীতিমালা প্রণয়নের মাধ্যমে বিতরণ নিশ্চিত করা, বিনা জামানতে এবং সর্বনিম্ন সুদে ব্যাংকঋণের ব্যবস্থা করা, রপ্তানি বহুমুখীকরণের অংশ হিসেবে বিশেষ করে লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং এবং কৃষিভিত্তিক শিল্প খাতকে সবচেয়ে সম্ভাবনাময় খাত হিসেবে চিহ্নিত করে খাত দুটির উন্নয়নে বিশেষ শুল্ক কর সুবিধা প্রদান, ২০ কর্মদিবসের মধ্যে সব ধরনের ইউটিলিটি সংযোগ প্রদান এবং রেয়াতি হারে সংযোগ ও সরবরাহের সংস্থান, মাইক্রো ও ক্ষুদ্র শিল্প খাতে তরুণ শিল্প উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করতে ন্যূনতম পাঁচ বছর কর অবকাশের পরিবর্তে বিশেষ কর সুবিধা প্রদান করা। ওই দাবির তালিকায় আরও রয়েছে, কোন শিল্পপ্রতিষ্ঠানে শতকরা ৫ শতাংশ শারীরিক প্রতিবন্ধী ও তৃতীয় লিঙ্গের শ্রমিক নিয়োগ করলে বিশেষ কর সুবিধা, প্রতিষ্ঠান আধুনিকায়নের জন্য সব ধরনের বিনিয়োগে বিশেষ কর সুবিধা, স্কিল ডেভেলপমেন্টের জন্য সব ধরনের বিনিয়োগ করমুক্ত রাখা, অপ্রচলিত পণ্য রপ্তানির ক্ষেত্রে বিশেষ কর সুবিধা ও নগদ প্রণোদনার ব্যবস্থা, ক্ষুদ্র শিল্প ও নারী উদ্যোক্তাদের সমন্বয়ে খাতভিত্তিক যৌথ প্রতিষ্ঠানগুলোকে বন্ডেড ওয়্যারহাউজ সুবিধা প্রদান, রপ্তানি পণ্য প্রস্তুত করতে আমদানিকৃত এবং দেশীয় উপকরণের ওপর পরিশোধিত সব শুল্ক ও কর মওকুফ গণ্য করে ফেরত প্রদান।

এছাড়া সংগঠনটি লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং খাতের উন্নয়ন, আমদানি শুল্ক মওকুফ, মূসক রহিতকরণ, বিকল্পবিরোধ নিষ্পত্তি ও করমুক্ত আয়সীমা কমিয়ে আনার বিষয়ে বেশকিছু প্রস্তাব করবে। এর মধ্যে রয়েছে কাঁচামাল আমদানিতে উৎসে কর প্রত্যাহার এবং উৎপাদিত পণ্যের ওপর উৎসে কর প্রত্যাহার, সব মূসক নিবন্ধিত শিল্প প্রতিষ্ঠানে মূসক ফরমে ঘোষিত মূলধনী যন্ত্রপাতি ও যন্ত্রাংশের ওপর আরেপিত ১ শতাংশ অতিরিক্ত সব ধরনের শুল্ক-কর মওকুফ করা।