menu

ডিএসইতে ২০ কার্যদিবসের সর্বোচ্চ লেনদেন

    সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
  • ঢাকা , শুক্রবার, ০৯ নভেম্বর ২০১৮

পতনের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে ঊর্ধ্বমুখী ধারায় ফিরেছে দেশের শেয়ারবাজার। মূল্যসূচকের উত্থানের পাশাপাশি গতি ফিরেছে লেনদেনেও। ফলে সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস গতকাল প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ২০ কার্যদিবসের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন হয়েছে। সেই সঙ্গে বেড়েছে সবকটি মূল্যসূচক।

ডিএসইর পাশাপাশি অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) সবকটি মূল্যসূচকের উত্থান হয়েছে। সেই সঙ্গে বেড়েছে লেনদেন। এর মাধ্যমে দুই বাজারই টানা দুই কার্যদিবস ঊর্ধ্বমুখী থাকল।

মূল্যসূচক ও লেনদেনের সঙ্গে এদিন লেনদেন হওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১৫৮টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমার তালিকায় স্থান করে নিয়েছে ১৩৫টি। আর ৪৩টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের এমন দাম বাড়ায় ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ১৬ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ২৫৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

ডিএসইর অপর দুটি মূল্যসূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক আগের দিনের তুলনায় ২ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ২১০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ৫ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৮৫৯ পয়েন্টে অবস্থান করছে। দিনভর ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫৯৩ কোটি ৭০ লাখ টাকা। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৪৮৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। সে হিসাবে লেনদেন বেড়েছে ১০৯ কোটি ২২ লাখ টাকা। এর মাধ্যমে বাজারটিতে ২০ কার্যদিবস বা ১১ অক্টোবরের পর সর্বোচ্চ লেনদেন হলো।

টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার। কোম্পানিটির ২৪ কোটি ৩৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা এসকে ট্রিমসের ১৯ কোটি ২৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ১৬ কোটি ৮৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইনটেক লিমিটেড।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- বিবিএস ক্যাবলস, ভিএফএস থ্রেড ডাইং, মুন্নু সিরামক, সায়হাম কটন, অ্যাডভেন্ট ফার্মা, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন এবং শাশা ডেনিম।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্যসূচক সিএসসিএক্স ১৭ পয়েন্ট বেড়ে ৯ হাজার ৭৫৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ২৫ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া ২৪১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১২৬টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৯২টির। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ২৩টির।