menu

কোনভাবেই থামছে না শেয়ারবাজারের পতন

ডিএসইতে বছরের সর্বনিম্ন লেনদেন

সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
  • ঢাকা , বুধবার, ১৫ মে ২০১৯
image

নানামুখী পদক্ষেপেও ফেরানো যাচ্ছে না শেয়ারবাজারের পতন। ব্যাংকের বিনিয়োগ বাড়ানোর উদ্যোগ, বিনিয়োগের জন্য ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি)-কে তহবিল প্রদানসহ বিভিন্ন পদক্ষেপও দমাতে পারছে না বাজারের মন্দাভাব। এছাড়াও প্লেসমেন্ট নৈরাজ্য বন্ধ, নতুন তালিকাভুক্ত কোম্পানির উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের শেয়ার বিক্রির চাপ কমানোর পদক্ষেপ, দুর্বল কোম্পানির প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) ঠেকানোর উদ্যোগসহ নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলো। মন্দা থেকে বের করে দেশের পুঁজিবাজারে গতি ফেরাতে সম্প্রতি এমন নানামুখী উদ্যোগ নিয়ে তৎপর বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনও (বিএসইসি)। বিএসইসির এ উদ্যোগ সফল করতে সরকারের পক্ষ থেকেও বিভিন্ন সহায়তা দেয়া হচ্ছে। ফলে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকেও দেয়া হচ্ছে নানা ছাড়। নিয়ন্ত্রক সংস্থার পাশাপাশি স্টক এক্সচেঞ্জ থেকে পুঁজিবাজারে গতি ফেরাতে বিভিন্ন প্রস্তাব দেয়া হচ্ছে। তারপরও গতকাল সূচকের পতন অব্যাহত থেকে শেষ হয়েছে লেনদেন। এদিন উভয় বাজারের সব সূচক কমেছে। একই সঙ্গে কমেছে টাকার পরিমাণে লেনদেনও। গতকাল ডিএসইতে টাকার পরিমাণে লেনদেন সাড়ে ১৩ মাসের মধ্যে সর্বনিম্নে নেমে এসেছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, মঙ্গলবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৫১ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। যা এক বছর ১ মাস ১৯ দিন বা ২৭৪ কার্যদিবসের মধ্যে সর্বনিম্ন। এর আগে ২০১৮ সালের ১৪ মার্চ ডিএসইতে টাকার পরিমাণে লেনদেন গতকালের চেয়ে কম হয়েছিল। ওই দিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ২২৪ কোটি টাকা।

গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩০ পয়েন্ট কমে দাড়িয়েছে ৫ হাজার ২১৭ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৭ ও ডিএসই-৩০ সূচক ১১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১২০৩ ও ১৮২৫ পয়েন্টে। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৪৭টি কোম্পানির মধ্যে ৭৬টির বা ২২ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। অন্যদিকে দাম কমেছে ২১৯টি বা ৬৩ শতাংশ কোম্পানির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫২টি বা ১৫ শতাংশ কোম্পানির।

টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে ফরচুন সুজের। এদিন কোম্পানির ১৫ কোটি ২২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা যমুনা ব্যাংকের ৮ কোটি ৬৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে এবং ৮ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে উঠে আসে ব্র্যাক ব্যাংক। টপটেন লেনদেনে উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছে- বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশন, মুন্নু সিরামিক, পাওয়ার গ্রিড, গ্রামীণফোন, লিগ্যাসি ফুটওয়্যার, স্কয়ার ফার্মা এবং এস্কয়ার নিট কম্পোজিট।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ৯৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৯৬২ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২২৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৫২টির, কমেছে ১৪২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৯টির দর। আজ ১৪ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এদিন দর বাড়ার ভিত্তিতে সিএসই’র টপটেন লেনদেনে উঠে আসা কোম্পানিগুলো হলো- পদ্মা অয়েল, লিগ্যাসি ফুটওয়্যার, জেনেক্সিল, শাহিন পুকুর সিরামিকস, ফাস ফাইন্যান্স, বঙ্গজ, ইটিএল, ডেল্টা স্পিনিং, বিডি ল্যামপস এবং সিএনএ টেক্সটাইল।