menu

সাময়িকী কবিতা

  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১০ অক্টোবর ২০১৯

নোরার অন্য গল্প

কাজল বন্দ্যোপাধ্যায়

নোরা টোরভাল্ডের প্রাণ বাঁচিয়েছে।

মিস লিন্ডে মৃত্যুশয্যাশায়ী মার পাশে ছিল,

তার ভাইদের দেখাশোনা শেষ ক’রে

তবেই না সে শহরে এসেছে, নোরার বাড়িতে-

উদ্ধার করার মতো আর কাউকে সে পাচ্ছে না খুঁজে-।

এইসব মানুষের গল্পের দেশে

কে কার খেলার পুতুল হয়ে যাবে

কে বলবে!

যারা সারাক্ষণ উদ্ধার করতে চায়, ত্রাণ,

তারাই মুহূর্তে ভাবতে পারে নিজেকে পুতুল,

একটুকুত্তেই

ফেলে দিয়ে চলে যেতে পারে জরুরি সংসার-

বুঝি পুতুলের খেলা

নকল দাঁত, নকল হাসিতে

মোহাম্মদ হোসাইন

অনেক পরে জেনেছি, বৃশ্চিক রাশির জাতিকা তুমি। শাসক মঙ্গলগ্রহ, লালরঙ শুভ

তাই, আজীবন জেদ চেপে চেপে

কপালের কাটা দাগ লুকিয়ে রেখে সটান হেঁটে গেছ এঘর থেকে ওঘর

একজীবন থেকে আরেকজীবন

ফুঁ দিয়ে উড়িয়ে দিতে চেয়েছ যাবতীয় অসত্য, অশুভ, অকল্যাণের ধুলো, ছায়া

শরীর আলগা হয়ে এসেছে যখন

যখন শুকিয়ে গেছে নাভীর ঘ্রাণ

উত্তেজনা অপসৃত জাহাজের সাইরেন

তখন, কাগজের নৌকা ভাসিয়ে

নকল দাঁত, নকল হাসিতে ভুলতে কিংবা

ভোলাতে চাইছ ব্যর্থতা অতীতের!

দেয়াল ও দেবী

জাফর সাদেক

একজন আজন্ম তৃষার্ত শিল্পী সাদা দেয়াল ঘেঁষে যেতে যেতে

ভাবছে মালিক অনুমতি দিলে

কী সুন্দর আঁকা যায় শরৎ আকাশ- দুর্গাদেবী হাসলেন

শিল্পীর সামনেই এক ককুর ঠ্যাঙ তুলে শুভ্রতা নষ্ট করে দেয়ালে

আনন্দে চা-দোকানের যুবক কুকুরকে ছুড়ে দেয় রুটির টুকরো

এক পাদ্রী রোববার প্রার্থনা শেষে এই দৃশ্যে

কুকুর ও যুবকের দিকে তাকায়- আহা ঈশ্বরের সন্তান

- দুর্গাদেবী হাসলেন

দেয়াল ঘেঁষে যাচ্ছে সাদা স্কুলড্রেসে বালিকা- মা’র শাড়ি রঙিন

কুকুরটা ফিরে আসছে দেখে যুবক আরও রুটি ছুঁড়ে দেয়

মা-মেয়ের হাত চেপে ধরে ভয়ে কিন্তু বালিকা হেসে ওঠে

সাদা দেয়ালের পাশে বালিকার হাসিটা আমাদের ভীষণ চেনা

যদি কোথাও চলে যাই

শাকিব লোহানী

তাহলে তোমাদের কী হবে?

যারা আমায় ভালোবেসেছিলে।

যদি সত্যিই কোথাও চলে যাই

তাহলে তোমাদের কী হবে?

যারা সত্যিই আমায় ভালোবেসেছিলে!

শীতে

তবু কিছু চিহ্ন কি আমার

রয়ে গেলো পিছে?

ছিলো কোন ভালোবাসা মিছে?

সাঁঝবেলায় মনে পড়ে যদি,

ভোরের শিশির হয়ে আবার

আসবো ফিরে শীতে

পার হয়ে শঙ্খনীল নদী।

আমার বিকেল

লিজা ফাহমিদা

আমি ভীষণ একলা হতাম

নিছক আমার মনের ভেতর,

দ্বিধান্বিত ডালপালারা

ছড়িয়ে যেত অষ্টপ্রহর;

একলা হতাম যখন তখন;

আরণ্যকে অপরাজিতায়,

মেঘদূত আর শকুন্তলার

তুমুল আবেগ, খুব প্রেমময়!

একলা আমি রোদ ছুঁয়ে যেই

পায়রা ওড়া দেখতে যেতাম,

ঝাপটে ডানায় পায়রা সকল

ডিগবাজিতেই মত্ত হতো;

এমন করেই বিকেল থেকে

সন্ধ্যা হতো, এখন যেমন

একলা আমি একলা আকাশ

সঙ্গীবিহীন আমার মতন।

তুষারচ্ছন্নতা

সানজিদা কাঁকন

এই তো কিছুদিন আগে বরফ পড়ে গেল।

সারিবাঁধা ম্যাপল ও পাইনের উঁচু উঁচু মাথা সাদা তুলোর ফেনায় উড়ছিল।

গাড়িগুলো কালো পিচের রাস্তায় ছুটছিল সাঁই সাঁই শব্দে।

এরপর সেই কালো রাস্তাটাই সারা রাত সারা দিন ধরে পড়া সাদা বেড়ালছানার ফুলো ফুলো রোয়ায় ভরে গিয়ে শুভ্র হাঁসের ডানা হয়ে গেল।

আমি চিলেকোঠার জানালা দিয়ে নির্নিমেষ তাকালাম, সবুজাভ চাঁদটা যতক্ষণ না সরে যায়।

উত্তর কিংবা দক্ষিণের জানালার এইসব ঘটমান দৃশ্যগুলি দেখেছিলাম। তাতে বেশ সুবিধে হলো, চোখ দুটোতে বরফ জমতে শুরু করলে তাতে বাঁধা দেইনি।

তুষার এতটাই জমে উঠলো যে আমার সমগ্র চেতনা ও চিন্তা তুষারচ্ছন্নতায় ডুবে গেল।

আমার এরপরে না ছিল কোন অতীত না ভবিষ্যত।

বর্তমানের গোলকধাঁধায় ছড়িয়ে গেল শ্বেত তুষারের কণাগুলো।

নাকফুল সন্ধ্যা

ফারজানা হায়দার চৌধুরী

সংগত কারণ থাকতে হবে এমনটা নয়

জীবনের জলসায় কত আলো নেভে-জ্বলে

পাতারা বয়সি হয় বিবর্ণ ধূসরতায়

প্রাসাদের গোপন কুঠুরি ইতিহাসে লুকিয়ে রাখে

অজস্র নাকফুল সন্ধ্যা দেরাজের অভ্যন্তরে সংগোপনে

প্রেমগুলো কাহিনি হয়ে যায় মুখে মুখে

কিছু দেরাজেই স্থান নেয় অন্ধকার ভালোবেসে

পৃথিবীর প্রবীণতার সাথে ভাঙা প্রাসাদ ছায়া ফেলে

নদীটির বুকে যেন আমার বিলুপ্ত হৃদয়গাথা!

মৃত্তিকার উপাখ্যান

হাবিবুর রহমান

পরিত্যক্ত শস্যক্ষেত্রটিও তার সুষম-ফসল থেকে আমাদের বঞ্চিত

করেনি। একদিন, আদি-বধূরা এখানে প্রভাত সূর্যকে প্রণামঠুকে

কৃষাণের গায়ে ছুঁড়ে দিয়েছিলো আঁচলভরা সর্ষের ফুল; হেমন্তের নম্র-

মেঘ থেকে নেমে আসা কুয়াশার জলে পবিত্র করেছিলো তাদের বসত-

আঙিনা।

ঘাস ও রোদ এবং গঙ্গার জল, ষোড়শীদের নগ্ন-পায়ে ঈর্ষার সবুজ-

সম্মোহ, কতোকালের কতো বনফুল, কতো বনেদি বন্দনা...

তৃপ্তি ও পিপাসার এমন বহু উপাখ্যান মৃত্তিকার এই মলাট জুড়ে এখনো

প্রাচীন অক্ষর হয়ে গেঁথে আছে। সেইসব গার্হস্থ্য মাটি, মানুষ এবং

সময়ের একটি ঊর্বর অনুবাদের প্রয়োজনেই আজ যতো শাশ্বত শিল্পের

আবাদ ও বিস্তার।

  • সিলভিয়া প্লাথ

    মৃত্যু, নৈঃসঙ্গ্য ও আত্মবিনাশের কবি

    কামরুল ইসলাম

    newsimage

    সিলভিয়া প্লাথ ছিলেন আমেরিকান কনফেশনাল কবিদের অন্যতম। সাহিত্যে কনফেশন বলতে বোঝায় সেই আত্মজীবনীমূলক রচনা (প্রকৃত

  • জীবন প্রলয়ী সিলভিয়া প্লাথ

    মিলটন রহমান

    newsimage

    আমার অন্তর্গত অনুসন্ধান এবং পর্যবেক্ষণিক সিলভিয়া প্লাথের বয়স বাইশ বছরের কম নয়। প্রথমদিকে কাব্যের চেয়েও বেশি অনুরক্ত এবং

  • সিলভিয়া প্লাথের কবিতা

    অনুবাদ : অশোক কর

    দু’জন, নিঃসন্দেহে ওরা দু’জনই। এখন খুবই স্বাভাবিক বলেই মনে হয়Ñ একজন

  • কমলকুমার বিষয়ে ভাব প্রকাশ

    মামুন হুসাইন

    newsimage

    কৃতি সমালোচকের বাক্য নকল করে বলি- লেখা তার ঈশ্বর সাধনা; নাকি বলবো পুরাণ, ব্রতকথা, ধ্রুপদী সঙ্গীত, মন্দির ভাস্কর্যের

  • ফিরে যাব রাজপথে

    সৌর শাইন

    newsimage

    মৃত্যুর দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে। স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি জীবননাশী দূতকে, যদিও চোখ দুটো বাঁধা। মৃত্যু আমার নিচের ঠোঁটটা আলতো ছুঁয়ে গেল।

  • উত্তাপ

    ফরিদা ইয়াসমিন সুমি

    newsimage

    ঘুম ভেঙে যায় বিথীর। দরদর করে ঘামছে। মনে হচ্ছে সারারাত ধরে স্বপ্ন দেখছিল। এরকমটা হয় মাঝেমাঝে। স্বপ্নের কথা মনে করে ভীষণ লজ্জা