menu

রমা চৌধুরী

মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক নভেলায়

খালেদ হামিদী

  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১১ অক্টোবর ২০১৮
image

রমা চৌধুরী / জন্ম : ১৪ অক্টোবর ১৯৪১; মৃত্যু : ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

আমার মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক একমাত্র উপন্যাসিকা ‘সব্যসাচী’তে রমা চৌধুরী আছেন, নভেলাটির শেষাংশে, এভাবে: এভাবে ওর উপন্যাস লেখার প্রেরণা সম্প্রতি ত্বরান্বিত হলেও পনেরো-ষোলো বছর আগের একটা ঘটনা মনে পড়লে সে গভীরভাবে অনুতপ্ত হয়।

রমা চৌধুরী ওর কর্মস্থলে স্বলিখিত বই বিক্রি করতে এলে আবিদ তাঁকে সঠিকভাবে চিনতে পারে না। তাঁর নজরুল বিষয়ক একটি বই কিনেও নেয় সে। পরে যখন একটি অনলাইন পোর্টালকে রমা বলেন: ‘আমি মরতে চাই না। আমার অনেক কিছু লেখার বাকি আছে। এই দেশকে এখনো আমি কিছুই দিতে পারিনি। দেশকে অনেক কিছু দিতে চাই। আমি স্বনির্ভর, স্বাবলম্বী আর আত্মমর্যাদা নিয়ে বাঁচতে চাই।’ তখন, একইসঙ্গে, শ্রদ্ধা ও সন্তাপে আবিদের মাথা নুয়ে আসে। তার দু’চোখেরই কোণে লবণ জমে। একই শহরে বাস করলেও রমার কাছে ক্ষমা চাইতে যাওয়া হয়ে ওঠে না ওর। কীভাবে তাঁর কাছে নিজের পরিচয় দেবে তাও ভেবে পায় না, আত্মোপলব্ধি অনুসারে তার ‘জনম গেলো বৃথা কাজে’ ব’লে। রমা চৌধুরীর মুক্তিযুদ্ধকালীন রোমহর্ষক অভিজ্ঞতার পুনর্পাঠ নেয় আবিদ। রমা চৌধুরী ১৯৭১ সালের মে মাসের এক ভোরে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হাতে নিজ বাড়িতে নির্যাতিত হন। সম্ভ্রম হারানোর পর পাকিস্তানিদের দোসরদের হাত থেকে পালিয়ে পুকুরে নেমে, ডুব দিয়ে আত্মরক্ষা করেন। হানাদাররা গানপাউডারে পুড়িয়ে দেয় তাঁর ঘরবাড়িসহ যাবতীয় সহায়-সম্পদ। তিনি তাঁর ওপর নির্যাতনের ঘটনা একাত্তরের জননী নামক গ্রন্থে প্রকাশ করেন। বলা হয়ে থাকে তিনি দক্ষিণ চট্টগ্রামের প্রথম স্নাতকোত্তর (এমএ) নারী। তিনি ১৯৬১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। রমা চৌধুরী ১৯৬২ সালে কক্সবাজার বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষিকার দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে পূর্ণাঙ্গ কর্মজীবন শুরু করেন। পরে দীর্ঘ ১৬ বছর তিনি বিভিন্ন উচ্চবিদ্যালয়ে শিক্ষকতায় নিয়োজিত থাকেন। তাঁর স্বামী আগেই ভারতে চলে যান। বলাৎকৃত হবার পর সন্তানের মায়ায় আত্মহনন থেকে নিবৃত্ত থাকলেও সেই থেকে অপরিসীম কষ্ট বয়ে বেড়ান সমগ্র সত্তায়। ১৯৭২-এর মধ্যেই তাঁর দুই সন্তান মারা যায়। প্রথম সংসারের পরিসমাপ্তির পর দ্বিতীয় সংসার গড়তে গিয়ে প্রতারণার শিকার হন। এ-পর্যায়ে আরেক পুত্রও মারা যায় সড়ক দুর্ঘটনায়। স্বাধীনতার পরে ২০ বছর তিনি লেখালেখিকেই পেশা হিসেবে বেছে নেন। নিজেই নিজের লেখা বই প্রকাশ করে ফেরি করতে শুরু করেন। সেই পেশায় এখনো তিনি সচল। প্রবন্ধ, উপন্যাস ও কাব্য মিলে তাঁর ১৮টি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়। মুক্তিযুদ্ধের পর টানা চার বছর জুতা বা স্যান্ডেল পরেননি রমা চৌধুরী। এরপর নিকটজনের অনুযোগে-পরামর্শে অনিয়মিতভাবে পাদুকা পরতে শুরু করলেও তৃতীয় সন্তানকে হারানোর পর আবার ছেড়ে দেন জুতো পায়ে দেয়া। তারপর থেকে অনাবৃত পায়ে পথ চলেছেন রমা চৌধুরী।

উপন্যাস লিখতে শুরু করার ঠিক কয়েক মুহূর্ত আগে আবিদের বয়স আবারও চুয়াল্লিশ বছর যে কমে তা নয়, বর্তমান বয়সের সমস্ত উপলব্ধি সমেতই তার শরীর সেই সাত বছর বয়সের উচ্চতায় ফিরে যায় কিংবা একই সঙ্গে সে প্রৌঢ়শিশুতে পরিণত হয়। রমা চৌধুরী নিজের বই হাতে, খালি পায়ে হেঁটে চলেন ফুটপাতে, গাছের ছায়ায়, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সামনে ও নানান রাস্তায়। আর, তাঁর পা ছুঁয়ে প্রণাম করতে অর্ধ শতাব্দী পেরুনো শিশু আবিদ নানা দিক থেকে কখনো ধীরে, কখনো সজোরে ছুটে যায়, ছুটতে থাকে প্রথমে ‘মাসি’ ও পরে ‘মা’ ডাকের পুনরাবৃত্তিময়তায়।

  • বিশেষ সাক্ষাৎকার

    কিছুটা এমার্জেন্সি কবির বাঁচার মধ্যে থাকে

    অলোকরঞ্জন দাশগুপ্ত

    newsimage

    প্রশ্ন : এই যে এত বছর বিদেশে থাকা, বছরে একবার করে আসা,

  • সমর সেন : কেন প্রাসঙ্গিক

    দারা মাহমুদ

    newsimage

    কবি বুদ্ধদেব বসু সম্পাদিত ‘কবিতা’ পত্রিকা হাতে পেয়ে রবীন্দ্রনাথ দু’জন অপরিচিত তরুণ

  • কবি জাহাঙ্গীরুল ইসলাম

    স্মৃতি ও কবিতা থেকে

    সৈকত রহমান

    newsimage

    জাহাঙ্গীরুল ইসলাম সম্পর্কে কিছু বলতে বা লিখতে যদি যাই, দেখি আমাদের ব্যক্তিগত

  • দিদি ও আমার দিন-যাপনের খসড়া

    আলাউদ্দিন খোকন

    newsimage

    ২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বিকেল ৫টা। দিদি চট্টগ্রাম মেডিকেলের আইসিইউ-তে। জন্মাষ্টমির বন্ধ চলছে।

  • এ সংখ্যার কবিতা

    newsimage

    একটি মনোরম সন্ধ্যার আর্তি কাজী সুফিয়া আখতার বেঙ্গল বইয়ের লাইব্রেরিতে বুধবার বিকেলে হঠাৎ করেই

  • অপ্পো কথার গপ্পো

    লিটন চক্রবর্তী মিঠুন

    newsimage

    আর দশটা বিষয়ের মতো সাহিত্যও হরেক রকম। নানা তার চেহারা, বিচিত্র তার

  • জনক

    শামীম আহমেদ

    newsimage

    বাড়ির আঙিনায় ঢুকেই মনটা খারাপ হয়ে গেল সৈকতের। চারদিকে বিদঘুটে অন্ধকার। জেনারেটর