menu

বিশ্বজুড়ে ব্যবহৃত হচ্ছে বাংলাদেশে তৈরি গুফি বই

  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৯ মার্চ ২০২০
image

বাংলাদেশের বিভিন্ন ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে যখন বিদেশি বই পড়ানো হচ্ছে, সেখানে ভাবতে ভালো লাগে যে, বাংলাদেশে তৈরি শিশুদের জন্য বই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ব্যবহৃত হচ্ছে। এই বিষয়টি বাস্তবে রূপ দিয়েছে লাইট অফ হোপ লিমিটেড তাদের গুফি (Goofi) বইয়ের সিরিজগুলোর মাধ্যমে।

আজ থেকে কয়েকশো বছর আগে ইংরেজি শাসকগোষ্ঠী উপমহাদেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে এমনভাবে ঢেলে সাজিয়েছিল যার মূলমন্ত্র ছিল, এই শিক্ষাব্যবস্থা থেকে এমন শিক্ষার্থী বের হবে যারা গায়ের রঙে ভারতীয় কিন্তু চিন্তা এবং মানসিকতায় ইংরেজ হবে। এবং আজ পর্যন্ত উপমহাদেশের দেশগুলোর শিক্ষাব্যবস্থা সেটি থেকে বের হতে পারেনি।

ইংরেজি মাধ্যম স্কুল এবং কিন্ডারগার্ডেন স্কুলের সুবাদে এখনও আমাদের দেশের শিশুরা এমন অনেক কিছু শেখে যেগুলো আমাদের দেশের সংস্কৃতির অন্তর্ভুক্ত না। বিশ্বায়নের এই যুগে পশ্চিমা শিক্ষা আরও সুদূরপ্রসারি হয়েছে। ধীরে ধীরে ঢুকে যাচ্ছে আমাদের সমাজের সবখানে- এবং বিশেষ করে স্কুলে এবং শিশুদের জীবনে। তাই স্পাইডারম্যান বা এলসাকে এখনকার শিশুরা চেনে। ডালিমকুমার তার কাছে এখন অচেনা।

অথচ ইংরেজি শিক্ষার আবির্ভাবের পূর্বে আমাদের দেশের যে শিক্ষা ছিল সেখানে শিশুদের জন্য ছিল আগে মানুষ হওয়ার, নৈতিকতা শেখার মূলমন্ত্র- আর এরপর ছিল একাডেমিক শিক্ষা।

জাপান বা ফিনল্যান্ডে এখন আবারও উপমহাদেশের শিক্ষার মূলমন্ত্রের ভিত্তিতে শিশু শিক্ষাকে আবার ঢেলে সাজানো হয়েছে। শিশুদের মধ্যে সৃজনশীলতা, সমস্যা সমাধানের দক্ষতা, মূল্যবোধ ইত্যাদি বিষয়ের উপর বিশেষ জোর দেয়া হচ্ছে।

শিশুদের মধ্যে সৃজনশীলতা, সমস্যা সমাধানের দক্ষতা, আবেগীয় দক্ষতা এবং নৈতিকতাবোধ বাড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে ২০১৭ সালে লাইট অফ হোপ লিমিটেড যাত্রা শুরু করে। যেহেতু এগুলো সারা পৃথিবীর সব দেশের শিশুদের জন্যই প্রয়োজন, তাই যাত্রার শুরু থেকেই চিন্তা ছিল পৃথিবীর সব শিশুর উপযোগী করে বই এবং কনটেন্ট ডিজাইন করা। কিন্তু সেটি করতে গিয়ে ভাষা অনেক সময় হয়ে দাঁড়ায় প্রধান সমস্যা। কারণ বাংলাদেশি শিশু কথা বলে বাংলাতে, আবার আমেরিকান শিশু কথা বলে ইংরেজিতে, আবার জার্মান শিশু কথা বলে জার্মান ভাষায়। ভাষাকে পাশ কাটিয়ে অথবা খুব স্বল্পমাত্রায় ব্যবহার করে কীভাবে বই তৈরি করা যায় যেখানে শিশু মূলত ছবির মাধ্যমে বা বিভিন্ন একটিভিটির মাধ্যমে নিজেদের সৃজনশীলতার চর্চা করতে পারে- সেটি ছিল বড় একটা চ্যালেঞ্জ।

তারই অংশ হিসাবে দুটি সিরিজ তৈরি করে গুফি- Goofi Letter to Picture এবং বর্ণ যখন ছবি হল। এই সিরিজটি তৈরি করেন লাইট অফ হোপের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও ওয়ালিউল্লাহ ভুঁইয়া।

একটা অক্ষর থেকে ধাপে ধাপে কীভাবে ধীরে ধীরে তৈরি হয়ে যায় বিভিন্ন ছবি সেটি দেখানো হয়েছে এই ৪ টি বইয়ে। যেমন, ক থেকে কীভাবে আঁকা যায় কাক, কিংবা B থেকে Bird-এর ছবি কীভাবে আঁকা যায়।

এই সিরিজটি এখন পৃথিবীর প্রায় ৩০টি দেশে শিশু, অভিভাবক এবং শিক্ষকরা ব্যবহার করছে। প্রথমে ই-বুক হিসাবে যাত্রা শুরু করলেও এখন হার্ডকাভার বই হিসাবে ৪ টি বই প্রকাশিত হয়েছে গত ২০১৯ সালে। এই বছরের বইমেলাতেও এই বইগুলো এখন পর্যন্ত বেস্ট সেলার।

সিরিজটি সম্পর্কে ওয়ালিউল্লাহ ভুঁইয়া বলেন, শিশুরা প্রথমে আসলে শেখে ছবি আঁকা, এরপর শেখে অক্ষর ও ভাষা। একটা শিশু ‘অ’ অক্ষর চেনার আগে চেনে অলি বা মৌমাছিকে। তাহলে যদি আমরা শিশুকে অলি আঁকা শেখানোর মাধ্যমে ‘অ’ অক্ষরটা চিনিয়ে ফেলতে পারি তাহলে সেটি আরও মজার এবং এফেক্টিভ হয়। আবার শিশু যখন অ থেকে অলি আঁকা শিখল, এরপর তাকে বলা যে ‘অ’ দিয়ে আর কী হয়? সেগুলোর কোনটা কি তুমি আঁকতে পারবে?

তখন শিশু যখন ভাবা শুরু করে তখনই ধীরে ধীরে তার মধ্যে সৃজনশীলতা এবং সমস্যা সমাধানের দক্ষতা বাড়তে থাকে।

লাইট অফ হোপ এই দুটি সিরিজের উপর গবেষণা করে দেখেছে যে শিশুরা অক্ষর শিখে ফেলছে ৩০ ভাগ তাড়াতাড়ি, সেটাও আবার অভিভাবক বা বড়দের সাহায্য ছাড়াই। পাশাপাশি বাড়ছে তাদের মোটর স্কিল এবং সৃজনশীলতা।

বাংলা এবং ইংরেজির পর তৈরি হয়েছে জার্মান এবং স্প্যানিশ ভাষার অক্ষরগুলো নিয়ে। কারণ জিজ্ঞেস করে জানা গেলো, পৃথিবীর ৭০ ভাগ শিশু কথা বলে প্রধান ৭টি ভাষায়। সেই ভাষাগুলোতে যদি এই সিরিজটি করা যায় তাহলে ৭০০ মিলিয়ন শিশুর কাছে পৌঁছানো যাবে।

প্রথম সিরিজের দারুণ সফলতার পর গুফি হাত দিয়েছে আরও বিভিন্ন সিরিজের কাজে। এখন পর্যন্ত প্রায় ৪০টি বই প্রকাশ করেছে গুফি। সেগুলোর সবই এখন পাওয়া যাচ্ছে দেশে এবং বিদেশে।

দেশের অভিভাবকরা চাইলে অনলাইনে দেশের সব স্বনামধন্য ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম থেকে থেকে গুফি বইগুলো কিনতে পারবেন সরাসরি। কেবল ওয়েবসাইটে গিয়ে Goofi লিখে সার্চ দিলেই চলে আসবে সৃজনশীলতা বাড়ানোর দারুণ সব বই। এছাড়া দেশের বাইরে বসবাসকারী অভিভাবকরা বই এবং অন্যান্য প্রোডাক্টগুলো কিনতে পারবেন Aadi থেকে।

এছাড়া আড়ং, বাবুল্যান্ড, ইনফিনিটি, বেঙ্গল বই, ইউনিমার্টসহ বিভিন্ন জায়গায় পাওয়া যাচ্ছে।

বাংলাদেশি কোম্পানি লাইট অফ হোপের লক্ষ্য হচ্ছে গুফিকে সারা পৃথিবীর শিশুদের কাছে পৌঁছে দেয়া। ভবিষ্যতের পৃথিবীর জন্য প্রয়োজনীয় দক্ষতা যেন তৈরি হয় প্রতিটি শিশুর মাঝে- থাকুক না সে বাংলাদেশের চরে, নিউইয়র্ক শহরে কিংবা নেপালের পাহাড়ে।

সাময়িকী প্রতিবেদক

  • সাময়িকী কবিতা

    newsimage

    আমার বুকের ভিতরে সমুদ্র আমার বুকের ভিতরে আকাশ, গোলাগুলির আওয়াজে যেন কান পাতা দায় তোমাকে নিয়ে যাই

  • বঙ্গবন্ধুর ভাবনায় বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

    গৌরাঙ্গ মোহান্ত

    newsimage

    রিপাবলিকের তৃতীয় সর্গে প্লেটো দর্শনকে কবিতার প্রতিপক্ষ করে তুলেছিলেন। হোমার ও তাঁর

  • পিতার মুখ

    সৈয়দ নূরুল আলম

    newsimage

    জাহানকে চারপায়ে ব্যাঙের মতো উবুড় হয়ে পড়ে থাকতে দেখে আগন্তুক বুঝে ফেলে,

  • শৈলশহর যাত্রা

    আবদুল লতিফ

    newsimage

    ট্রেনের জানালা দিয়ে বাইরে তাকিয়ে আছি। “কচি ধানগাছে ক্ষেত ভরে আছে, হাওয়া

  • কবিতায় বঙ্গবন্ধু

    আবদুল আলীম তালুকদার

    newsimage

    বিশ্বের সর্বকালের সর্বসেরা কবিদের কবি, অভাবিতপূর্ব ও অনন্য সাধারণ জাদুকরী আবৃত্তিকার; মাত্র