menu

গাব্রিয়েলা মিস্ত্রালের কবিতা

অনুবাদ : অনন্ত মাহফুজ

  • ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৪ মে ২০২০
image

বিষণ্ণ মা

ঘুমাও, ঘুমাও, প্রিয়তম আমার

চিন্তাহীন, ভয়হীন,

যদিও আমার আত্মা ঘুমায় না,

যদিও আমার বিশ্রাম নেই।

ঘুমাও, ঘুমাও এবং রাতে

তোমার ফিসফিসানি কোমলতর হয়ে আসে

গাছের পাতার চেয়ে,

কিংবা ভেড়ার সিল্কের লোমের মতো।

আমার মাংসপি- তোমাতে নিদ্রা যাক,

আমার দুশ্চিন্তা, আমার উদ্বিগ্নতা।

তোমাতে, আমার চোখের পাতা বুঁজে আসুক

এবং আমার আত্মা ঘুমাক।

পাইন বন

চল এখন বনে যাওয়া যাক।

তোমার মুখের পাশ দিয়ে চলে যাবে গাছ,

আমি তাদের থামিয়ে তোমাকে সমর্পণ করব তাদের নিকট,

কিন্তু তারা মাথা নত করবে না।

রাত তার সৃষ্টির ওপর নজর রাখে,

শুধু পাইন বৃক্ষ ছাড়া যে কখনো পরিবর্তিত হয় না:

পুরনো আহত ঝর্ণারা প্রস্রবণ করে

আশীর্বাদপুষ্ট আঠা, অনিঃশেষ বিকেল।

যদি পারত, তবে বৃক্ষেরা তোমাকে তুলে নিত

নিয়ে যেত এক উপত্যকা থেকে আরেক উপত্যকায়,

এবং তুমি ঘুরে বেড়াতে কোল থেকে কোলে

পিতা থেকে পিতায় ঘুরে বেড়ানো এক শিশু।

গোলাপ

গোলাপের হৃদয়ের ভিতরের সম্পদ

তোমার নিজের অন্তরেও লুক্কায়িত

ছড়িয়ে দাও যেমন দেয় গোলাপ:

তোমার ব্যথা হবে তার ব্যথার পরিমাপযোগ্য।

ছড়িয়ে দাও গানে,

অথবা কোনো প্রেমের আকাক্সক্ষায়।

গোলাপকে থামিও না

পাছে পুড়ে খাক হও তার আগুনে।

কবি পরিচিতি

[গাব্রিয়েলা মিস্ত্রালের জন্ম ১৮৮৯ সালে চিলির ভিসুনায়। তিনি একাধারে একজন শিক্ষাবিদ, কূটনীতিক এবং ল্যাটিন আমেরিকা থেকে সাহিত্যে নোবেল পাওয়া প্রথম কবি। আসল নাম লুসিলা গডয় আলকায়েগা। তার পিতাও একজন ছিলেন। গ্রামের স্কুলে শিক্ষকতা করেন। তখন থেকেই কবিতা লেখার শুরু। এ সময় তিনি রেলেওয়েতে কর্মরত একজন অফিসারের প্রেমে পড়েন। কোনো কারণে এই অফিসার আত্মহত্যা করলে গাব্রিয়েলা ভেঙ্গে পড়েন। প্রেমিকের মৃত্যু তার ওপর গভীর প্রভাব ফেলে। মূলত তখন থেকেই তিনি কবিতা লিখতে শুরু করেন। এরপর অনেকটা স্বেচ্ছা-নির্বান্ধব জীবন কাটান। বিয়ে করেননি। তার ব্যক্তিগত দুঃখ-বেদনাকে তিনি অসাধারাণ দক্ষতায় কবিতায় ফুটিয়ে তুলেছেন। তার কবিতায় বিষয় বুদ্ধিবৃৃত্তিক ও আত্মিক ভালোবাসা, নিঃসঙ্গতা, জীবপ্রেম। শিশুদের জন্য ছিল তার অপরিসীম ভালোবাসা। শিক্ষা সংস্কারে তার অনেক ভূমিকা আজও স্মরণীয়। জাতিসংঘের সাংস্কৃতিক কমিটিতে ছিলেন। মাদ্রিদ, লিসবন এবং নেপলসে শিশু বিষয়ক কনসাল হিসাবে কাজ করেছেন। স্প্যানিশ ভাষা পড়াতেন যুক্তরাষ্ট্রের কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে। সনেটস অব ডেথ তাকে খ্যাতি এনে দেয়। ১৯৫৭ সালের ১০ জানুয়ারি আমেরিকার নিউইয়র্কে তিনি মৃত্যু বরণ করেন। ]

  • সাব-অল্টার্ন স্টাডিজের ‘মহামারি’ ভাবনা

    মিল্টন বিশ্বাস

    newsimage

    সাব-অল্টার্ন স্টাডিজ গোষ্ঠীর অন্যতম লেখক দীপেশ চক্রবর্তীর Community, state and the body

  • করোনানিশীথে জ্ঞানদেবীর সঙ্গে

    নূরুদ্দিন জাহাঙ্গীর

    newsimage

    রাতভর জেগে চেষ্টা করছি। কিছুই লেখা হচ্ছে না। জ্ঞানদেবীও বুঝি করোনাকে ভয়

  • নিমাই সরকার

    আগুনের পরশমনি

    newsimage

    হঠাৎ করেই ভেঙেচুরে কিছু একটা পড়ার শব্দ। কী হলো, কী হলো! আর

  • অফিসে একদিন

    হাইকেল হাশমী

    newsimage

    অমিত মাত্র বি-বি-এ করেছে। কতো কষ্ট করে এই প্রতিষ্ঠানে দুইটা লিখিত পরীক্ষা তিনটি মৌখিক পরিক্ষা,

  • সাময়িকী কবিতা

    কোয়ারেন্টিনকে আমি বিসংরব বলি। তুমি তো সেই কস্মিনকাল থেকেই বিসংরবে তোমাকে জীবন্ত কবর জীবন্ত চিতায় একা রেখে

  • আমার আছে বই : ১২

    মালেকা পারভীন

    newsimage

    সাহিত্যের প্রতি ভিনসেন্ট এর ভালোবাসা এতোটাই অপ্রতিরোধ্য ছিল যে তাঁর কিছু পোর্ট্রেট/স্থিরচিত্র

  • সোহরাব হাসানের কবিতা

    newsimage

    নারীর ভেতরে দ্রোহ দেখলেন মহান মার্কস তাঁর স্বপ্ন ছিল নারী-পুরুষের সুষম সমাজ